ঢাকা , শুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪, ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম :
বিশ্বায়নের যুগে কারিগরি শিক্ষার বিকল্প নেই: প্রবাসী কল্যাণ প্রতিমন্ত্রী মালয়েশিয়া থেকে নিজ দেশে ফিরেছেন ৬১ হাজারের বেশি নথিবিহীন প্রবাসী বাংলাদেশিদের জন্য যেসব ভিসা চালু করেছে ওমান শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্টের সঙ্গে সার্ক মহাসচিবের সৌজন্য সাক্ষাৎ দ্বিতীয়বার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সংসদীয় স্থায়ী কমিটি সভাপতি বেনজীর আহমেদ এবার হজে প্রচণ্ড গরমের শঙ্কা, সতর্ক থাকার আহ্বান মালয়েশিয়ায় বিভিন্ন অপরাধে ৬৬ বাংলাদেশিসহ ২৭০ অভিবাসী অভিযুক্ত মালয়েশিয়ায় যেতে না পারা ৩ হাজার কর্মীর অভিযোগ মন্ত্রণালয়ে বায়রা’র এজিএম-এ হট্টগোল, পাল্টাপাল্টি অভিযোগ রিক্রুটিং এজেন্সি মালিকদের বাংলাদেশ থেকে আরো দক্ষ কর্মী নেবে জাপান: প্রবাসী কল্যাণ প্রতিমন্ত্রী

মালয়েশিয়া যেতে না পারা সেই যুবকের লাশ ৪৪ ঘণ্টা পর উদ্ধার

প্রথম আলো
  • আপডেটের সময় : ১২:২৯ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ৩ জুন ২০২৪
  • / 96

 

কিশোরগঞ্জের ভৈরব রেলসেতু অতিক্রম করার সময় ট্রেনের দরজা থেকে পড়ে মেঘনা নদীতে নিখোঁজ তানভির মিয়ার (২২) লাশ প্রায় ৪৪ ঘণ্টা পর উদ্ধার করা হয়েছে। রোববার (২ জুন) দুপুরে মেঘনা নদীর নরসিংদীর রায়পুরা উপজেলার বেগমাবাদ এলাকায় লাশ ভেসে ওঠে। তখন রায়পুরার মির্জাপুর নৌ ফাঁড়ি পুলিশ লাশ উদ্ধার করে।

 

রবিবার সন্ধ্যা ছয়টার দিকে তানভিরের লাশ গ্রামের বাড়ি ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়ার দেবগ্রামে পৌঁছায়। ভৈরব নৌ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. মনিরুজ্জামান বলেন, আশপাশের সব কটি নৌ থানায় এ বিষয়ে আগে থেকে বার্তা পৌঁছে দেওয়া ছিল। বেলা আড়াইটার দিকে রায়পুরা থানার নিয়ন্ত্রণাধীন নৌপথে লাশটি ভেসে ওঠে। পরে তা উদ্ধার করে পরিবারের সদস্যদের কাছে পৌঁছে দেওয়া হয়।

 

সন্ধ্যায় তানভিরের লাশ গ্রামের বাড়ি পৌঁছানোর পর হৃদয়বিদারক পরিবেশের সৃষ্টি হয়। মা শারমিন আক্তারের বুকফাটা আর্তনাদে পরিবেশ ভারী হয়ে ওঠে। তানভিরের মামা মো. ইমরান হোসেন বলেন, ‘আমার বোনের পরিবারে আর্থিক অনটন ছিল না। ভাগনে যেন জীবনের প্রতি দায়িত্বশীল হয়, সে জন্য তাকে প্রবাসে পাঠানোর প্রক্রিয়া শুরু করা হয়। তানভিরের প্রবাসে যাওয়া ও প্লেনে ওঠার খুব শখ ছিল। কিন্তু প্রবাসে না গিয়ে না ফেরার দেশে চলে গেল ভাগনে। তানভিরের বাবা কখনো ছেলের কোনো শখ অপূর্ণ রাখেননি। ছেলের আগ্রহে বাবা বিদেশ যাওয়ার সব ব্যবস্থা করেছিলেন।’

 

আজ মাগরিবের নামাজের পর দেবগ্রামে তানভিরের জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। এরপর পারিবারিক কবরস্থানে সন্ধ্যা সাড়ে সাতটার দিকে লাশ দাফন করা হয়। পরিবারের সদস্যরা বলেন, মালয়েশিয়ায় যাওয়ার জন্য গত বৃহস্পতিবার বাবার সঙ্গে ঢাকায় যান তানভির। ফ্লাইট ছিল গত শুক্রবার ভোররাত চারটায়। কিন্তু বৃহস্পতিবার দুপুরে জানতে পারেন, ফ্লাইট বাতিল করে ৭ জুন নতুন তারিখ দেওয়া হয়েছে। শুক্রবার বিকেলে উপকূল এক্সপ্রেস ট্রেনে বাড়িতে ফিরছিলেন। পথে কিশোরগঞ্জের ভৈরব রেলসেতু অতিক্রমের সময় ট্রেনের দরজা থেকে মেঘনা নদীতে পড়ে নিখোঁজ হন তিনি।

 

এদিকে দুর্ঘটনার পর ৩০ সেকেন্ডের একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রকাশ পায়। সেখানে দেখা যায়, ভৈরব সেতুর ২ নম্বর পিলারের কাছে এক ব্যক্তি ভাসছেন। পুলিশ ও উপস্থিত জনতার দাবি, ট্রেন থেকে পড়ে প্রথমে পিলারের সঙ্গে ধাক্কা খেয়ে পরে নদীতে পড়েন তানভির। দুর্ঘটনার পর ভৈরব নৌ পুলিশ ও নদী ফায়ার সার্ভিস দল যৌথভাবে উদ্ধারকাজ শুরু করে। উদ্ধারকাজের সর্বশেষ অবস্থা জানতে আজ কিশোরগঞ্জ জেলার নৌ পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সুমন রেজা দুর্ঘটনাস্থলে যান।

শেয়ার করুন

মালয়েশিয়া যেতে না পারা সেই যুবকের লাশ ৪৪ ঘণ্টা পর উদ্ধার

আপডেটের সময় : ১২:২৯ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ৩ জুন ২০২৪

 

কিশোরগঞ্জের ভৈরব রেলসেতু অতিক্রম করার সময় ট্রেনের দরজা থেকে পড়ে মেঘনা নদীতে নিখোঁজ তানভির মিয়ার (২২) লাশ প্রায় ৪৪ ঘণ্টা পর উদ্ধার করা হয়েছে। রোববার (২ জুন) দুপুরে মেঘনা নদীর নরসিংদীর রায়পুরা উপজেলার বেগমাবাদ এলাকায় লাশ ভেসে ওঠে। তখন রায়পুরার মির্জাপুর নৌ ফাঁড়ি পুলিশ লাশ উদ্ধার করে।

 

রবিবার সন্ধ্যা ছয়টার দিকে তানভিরের লাশ গ্রামের বাড়ি ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়ার দেবগ্রামে পৌঁছায়। ভৈরব নৌ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. মনিরুজ্জামান বলেন, আশপাশের সব কটি নৌ থানায় এ বিষয়ে আগে থেকে বার্তা পৌঁছে দেওয়া ছিল। বেলা আড়াইটার দিকে রায়পুরা থানার নিয়ন্ত্রণাধীন নৌপথে লাশটি ভেসে ওঠে। পরে তা উদ্ধার করে পরিবারের সদস্যদের কাছে পৌঁছে দেওয়া হয়।

 

সন্ধ্যায় তানভিরের লাশ গ্রামের বাড়ি পৌঁছানোর পর হৃদয়বিদারক পরিবেশের সৃষ্টি হয়। মা শারমিন আক্তারের বুকফাটা আর্তনাদে পরিবেশ ভারী হয়ে ওঠে। তানভিরের মামা মো. ইমরান হোসেন বলেন, ‘আমার বোনের পরিবারে আর্থিক অনটন ছিল না। ভাগনে যেন জীবনের প্রতি দায়িত্বশীল হয়, সে জন্য তাকে প্রবাসে পাঠানোর প্রক্রিয়া শুরু করা হয়। তানভিরের প্রবাসে যাওয়া ও প্লেনে ওঠার খুব শখ ছিল। কিন্তু প্রবাসে না গিয়ে না ফেরার দেশে চলে গেল ভাগনে। তানভিরের বাবা কখনো ছেলের কোনো শখ অপূর্ণ রাখেননি। ছেলের আগ্রহে বাবা বিদেশ যাওয়ার সব ব্যবস্থা করেছিলেন।’

 

আজ মাগরিবের নামাজের পর দেবগ্রামে তানভিরের জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। এরপর পারিবারিক কবরস্থানে সন্ধ্যা সাড়ে সাতটার দিকে লাশ দাফন করা হয়। পরিবারের সদস্যরা বলেন, মালয়েশিয়ায় যাওয়ার জন্য গত বৃহস্পতিবার বাবার সঙ্গে ঢাকায় যান তানভির। ফ্লাইট ছিল গত শুক্রবার ভোররাত চারটায়। কিন্তু বৃহস্পতিবার দুপুরে জানতে পারেন, ফ্লাইট বাতিল করে ৭ জুন নতুন তারিখ দেওয়া হয়েছে। শুক্রবার বিকেলে উপকূল এক্সপ্রেস ট্রেনে বাড়িতে ফিরছিলেন। পথে কিশোরগঞ্জের ভৈরব রেলসেতু অতিক্রমের সময় ট্রেনের দরজা থেকে মেঘনা নদীতে পড়ে নিখোঁজ হন তিনি।

 

এদিকে দুর্ঘটনার পর ৩০ সেকেন্ডের একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রকাশ পায়। সেখানে দেখা যায়, ভৈরব সেতুর ২ নম্বর পিলারের কাছে এক ব্যক্তি ভাসছেন। পুলিশ ও উপস্থিত জনতার দাবি, ট্রেন থেকে পড়ে প্রথমে পিলারের সঙ্গে ধাক্কা খেয়ে পরে নদীতে পড়েন তানভির। দুর্ঘটনার পর ভৈরব নৌ পুলিশ ও নদী ফায়ার সার্ভিস দল যৌথভাবে উদ্ধারকাজ শুরু করে। উদ্ধারকাজের সর্বশেষ অবস্থা জানতে আজ কিশোরগঞ্জ জেলার নৌ পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সুমন রেজা দুর্ঘটনাস্থলে যান।