ঢাকা , শুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪, ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম :
বিশ্বায়নের যুগে কারিগরি শিক্ষার বিকল্প নেই: প্রবাসী কল্যাণ প্রতিমন্ত্রী মালয়েশিয়া থেকে নিজ দেশে ফিরেছেন ৬১ হাজারের বেশি নথিবিহীন প্রবাসী বাংলাদেশিদের জন্য যেসব ভিসা চালু করেছে ওমান শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্টের সঙ্গে সার্ক মহাসচিবের সৌজন্য সাক্ষাৎ দ্বিতীয়বার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সংসদীয় স্থায়ী কমিটি সভাপতি বেনজীর আহমেদ এবার হজে প্রচণ্ড গরমের শঙ্কা, সতর্ক থাকার আহ্বান মালয়েশিয়ায় বিভিন্ন অপরাধে ৬৬ বাংলাদেশিসহ ২৭০ অভিবাসী অভিযুক্ত মালয়েশিয়ায় যেতে না পারা ৩ হাজার কর্মীর অভিযোগ মন্ত্রণালয়ে বায়রা’র এজিএম-এ হট্টগোল, পাল্টাপাল্টি অভিযোগ রিক্রুটিং এজেন্সি মালিকদের বাংলাদেশ থেকে আরো দক্ষ কর্মী নেবে জাপান: প্রবাসী কল্যাণ প্রতিমন্ত্রী

মালয়েশিয়াগামী কর্মীদের সঙ্গে প্রতারণাকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে: প্রতিমন্ত্রী

প্রবাস বার্তা ডেস্ক
  • আপডেটের সময় : ১২:৩৩ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২ জুন ২০২৪
  • / 145

 

মালয়েশিয়া সরকারের দেওয়া সময়ের মধ্যে দেশটিতে যেতে পারেননি কয়েক হাজার বাংলাদেশি কর্মী। এ পরিস্থিতির জন্য দায়ীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন প্রবাসী কল্যাণ প্রতিমন্ত্রী শফিকুর রহমান চৌধুরী। তিনি বলেন, যেসব কর্মী ভোগান্তির শিকার হয়েছে এবং যার এর জন্য দায়ী তাদের ব্যাপারে তদন্ত কমিটি গঠন করা হবে। যারা তদন্তে দোষী হবে তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ শাস্তির ব্যবস্থা করা হবে ।

 

শনিবার (১ জুন) দুপুরে সিলেটে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এসব কথা বলেন।

 

শফিকুর রহমান চৌধুরী বলেছেন, রিক্রুটিং এজেন্সির সংগঠন বায়রার সাথে বার বার বৈঠক হয়েছে। গেল মাসের ১৫ তারিখ বায়রাকে বলা হয়েছে যেসব কর্মী মালয়েশিয়ায় যাবে তাদের চূড়ান্ত তালিকা করতে। কিন্তু তারা সেই তালিকা তৈরী করেনি এবং জমাও দেয়নাই । আর শেষ সময় মন্ত্রণালয়কে বলছে কর্মী প্রস্তুত কিন্তু ফ্লাইট পাচ্ছিনা।

 

প্রতিমন্ত্রী শফিকুর রহমান চৌধুরী বলেন, বিমান মন্ত্রী, বিমানের এমডি, সিভিল এভিয়েশন চেয়ারম্যানসহ অন্যানদের সাথে প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে যোগাযোগ করা হয়েছে। এমন কি তাদের সাথে ব্যক্তিগত ভাবে যোগাযোগ করেছেন বলেও জানান প্রতিমন্ত্রী। তিনি বলেন, মালয়েশিয়া যাওয়া কর্মীদের জন্য নিয়মিত ফ্লাইটের পাশাপাশি ২২ টি বিশেষ ফ্লাইট দেয়া হয়েছে। তারপরও কর্মীরা ভোগান্তিতে পড়েছে।

 

৫ থেকে ৬ লাখ টাকা দিয়ে যারা যেতে পারেনি তাদের ব্যাপারে প্রতিমন্ত্রী বলেন কর্মীদের বেশি টাকার দেয়ার ব্যাপারে কিছু জানেন না। তিনি বলেন, সরকারি খরচ ৭৬ হাজার ৯শ টাকার মতো আর বেসরকারি ভাবে কে কত টাকা দিয়েছে সেটা জানিনা। এরপরেও যারা ভোগান্তির শিকার হয়েছেন তাদের ব্যাপারে সরকার অত্যন্ত আন্তরিক। কর্মীদের এই ব্যাপারে অভিযোগ আসলে যে বা যারা এর জন্য দায়ী তারা দোষী সাব্যস্ত হলে তাদের বিরুদ্দে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

 

প্রতিমন্ত্রী বলেন, সারাবিশ্বের ১৭৬ টি দেশে বাংলাদেশ থেকে কর্মী যাচ্ছে, কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা হচ্ছে। শুধু অদক্ষ কর্মী না দক্ষ, আধা দক্ষ, পেশাদার, ডাক্তার, ইঞ্জিনিয়ার, নার্স, শিক্ষকসহ প্রতি স্তরের মানুষ বিশেষে যাচ্ছে এবং পাঠাতে সক্ষম হচ্ছি । এছাড়া যোগ্যতা অনুসারে যে দেশে যে ধরণের চাহিদা আছে সে চাহিদা অনুযায়ী কর্মী পাঠানো হচ্ছে বলেও জানান শফিকুর রহমান চৌধুরী।

 

এছাড়া মালয়েশিয়া সরকারের কাছে মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে চিঠি দেয়া হয়েছে সময় বাড়ানোর জন্য কিন্তু এখনো কোনো উত্তর আসেনি বলে জানান প্রবাসী কল্যাণ প্রতিমন্ত্রী। তিনি বলেন, দূতাবাসসহ মন্ত্রণালয়ে পক্ষ থেকে যোগাযোগ করা হচ্ছে। উত্তর পেলে নিশ্চই ব্যবস্থা নেয়া হবে।

 

প্রতিমন্ত্রী আরো বলেন, “যারা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে তাদের পক্ষে আমরা আছি, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ মোতাবেক কাজ করে যাচ্ছি ইনশাআল্লাহ সকল সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে।”

শেয়ার করুন

মালয়েশিয়াগামী কর্মীদের সঙ্গে প্রতারণাকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে: প্রতিমন্ত্রী

আপডেটের সময় : ১২:৩৩ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২ জুন ২০২৪

 

মালয়েশিয়া সরকারের দেওয়া সময়ের মধ্যে দেশটিতে যেতে পারেননি কয়েক হাজার বাংলাদেশি কর্মী। এ পরিস্থিতির জন্য দায়ীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন প্রবাসী কল্যাণ প্রতিমন্ত্রী শফিকুর রহমান চৌধুরী। তিনি বলেন, যেসব কর্মী ভোগান্তির শিকার হয়েছে এবং যার এর জন্য দায়ী তাদের ব্যাপারে তদন্ত কমিটি গঠন করা হবে। যারা তদন্তে দোষী হবে তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ শাস্তির ব্যবস্থা করা হবে ।

 

শনিবার (১ জুন) দুপুরে সিলেটে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এসব কথা বলেন।

 

শফিকুর রহমান চৌধুরী বলেছেন, রিক্রুটিং এজেন্সির সংগঠন বায়রার সাথে বার বার বৈঠক হয়েছে। গেল মাসের ১৫ তারিখ বায়রাকে বলা হয়েছে যেসব কর্মী মালয়েশিয়ায় যাবে তাদের চূড়ান্ত তালিকা করতে। কিন্তু তারা সেই তালিকা তৈরী করেনি এবং জমাও দেয়নাই । আর শেষ সময় মন্ত্রণালয়কে বলছে কর্মী প্রস্তুত কিন্তু ফ্লাইট পাচ্ছিনা।

 

প্রতিমন্ত্রী শফিকুর রহমান চৌধুরী বলেন, বিমান মন্ত্রী, বিমানের এমডি, সিভিল এভিয়েশন চেয়ারম্যানসহ অন্যানদের সাথে প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে যোগাযোগ করা হয়েছে। এমন কি তাদের সাথে ব্যক্তিগত ভাবে যোগাযোগ করেছেন বলেও জানান প্রতিমন্ত্রী। তিনি বলেন, মালয়েশিয়া যাওয়া কর্মীদের জন্য নিয়মিত ফ্লাইটের পাশাপাশি ২২ টি বিশেষ ফ্লাইট দেয়া হয়েছে। তারপরও কর্মীরা ভোগান্তিতে পড়েছে।

 

৫ থেকে ৬ লাখ টাকা দিয়ে যারা যেতে পারেনি তাদের ব্যাপারে প্রতিমন্ত্রী বলেন কর্মীদের বেশি টাকার দেয়ার ব্যাপারে কিছু জানেন না। তিনি বলেন, সরকারি খরচ ৭৬ হাজার ৯শ টাকার মতো আর বেসরকারি ভাবে কে কত টাকা দিয়েছে সেটা জানিনা। এরপরেও যারা ভোগান্তির শিকার হয়েছেন তাদের ব্যাপারে সরকার অত্যন্ত আন্তরিক। কর্মীদের এই ব্যাপারে অভিযোগ আসলে যে বা যারা এর জন্য দায়ী তারা দোষী সাব্যস্ত হলে তাদের বিরুদ্দে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

 

প্রতিমন্ত্রী বলেন, সারাবিশ্বের ১৭৬ টি দেশে বাংলাদেশ থেকে কর্মী যাচ্ছে, কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা হচ্ছে। শুধু অদক্ষ কর্মী না দক্ষ, আধা দক্ষ, পেশাদার, ডাক্তার, ইঞ্জিনিয়ার, নার্স, শিক্ষকসহ প্রতি স্তরের মানুষ বিশেষে যাচ্ছে এবং পাঠাতে সক্ষম হচ্ছি । এছাড়া যোগ্যতা অনুসারে যে দেশে যে ধরণের চাহিদা আছে সে চাহিদা অনুযায়ী কর্মী পাঠানো হচ্ছে বলেও জানান শফিকুর রহমান চৌধুরী।

 

এছাড়া মালয়েশিয়া সরকারের কাছে মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে চিঠি দেয়া হয়েছে সময় বাড়ানোর জন্য কিন্তু এখনো কোনো উত্তর আসেনি বলে জানান প্রবাসী কল্যাণ প্রতিমন্ত্রী। তিনি বলেন, দূতাবাসসহ মন্ত্রণালয়ে পক্ষ থেকে যোগাযোগ করা হচ্ছে। উত্তর পেলে নিশ্চই ব্যবস্থা নেয়া হবে।

 

প্রতিমন্ত্রী আরো বলেন, “যারা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে তাদের পক্ষে আমরা আছি, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ মোতাবেক কাজ করে যাচ্ছি ইনশাআল্লাহ সকল সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে।”