ঢাকা , রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ৩০ চৈত্র ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম :
প্রবাসীদের দীর্ঘ প্রতিক্ষার পর মালয়েশিয়ায় চালু হচ্ছে ই-পাসপোর্টের কার্যক্রম প্রবাসীদের ঈদ উদযাপন বাস্তবতা খুঁজে পাওয়া দুষ্কর মালয়েশিয়ায় সড়ক দুর্ঘটনা, চিকিৎসাধীন আরেক বাংলাদেশির মৃত্যু মালয়েশিয়ায় সড়ক দুর্ঘটনায় ৩ বাংলাদেশির মৃত্যু নিউইয়র্কে জাতিসংঘ মহাসচিবের সঙ্গে সার্কের মহাসচিবের সৌজন্য সাক্ষাৎ মালয়েশিয়ায় ঈদুল ফিতরের নামাজ আদায় মালয়েশিয়ায় বুধবার পবিত্র ঈদুল ফিতর অনুমতি ছাড়া আতশবাজি বিক্রি:মালয়েশিয়ায় ২ বাংলাদেশিসহ গ্রেপ্তার ৩ বাংলাদেশি কর্মীদের প্রশংসায় মালয়েশিয়ার সাবেক মন্ত্রী এম সারাভানান কুয়ালালামপুর-ঢাকা রুটে বিমান ভাড়া নিয়ে নৈরাজ্য

পাসপোর্ট বিতরণ: প্রবাসীদের দাবি পূরণ করলেন হাইকমিশনার শামীম আহসান

আহমাদুল কবির, মালয়েশিয়া
  • আপডেটের সময় : ০১:৩৭ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৬ মার্চ ২০২৪
  • / 34

 

পাসপোর্ট প্রদানের মাধ্যমে, মালয়েশিয়ার সেলাঙ্গর রাজ্যে বসবাসরত প্রবাসীদের দাবি পূরণ করলেন, দেশটিতে নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনার মো: শামীম আহসান। দাবি পূরণের আগে, গত ২৭ ফেব্রুয়ারি প্রবাস স্কিম ও বৈধপথে রেমিটেন্স পাঠানো বিষয়ক এক প্রচারণা সভা করেন হাইকমিশনার। সেলাঙ্গর রাজ্যের ক্লাং-এ অগ্রণী রেমিটেন্স হাউজে অনুষ্টিত প্রচারনা সভায় উপস্থিত শত শত প্রবাসী বাংলাদেশিকে ক্লাং-এ বিশেষ ব্যবস্থাপনায় পাসপোর্ট প্রদানের দাবি উত্থাপন করেন হাইকমিশনারের কাছে।

 

প্রবাসীরা বলছিলেন, পোষ্ট অফিস অথবা সরাসরি হাইকশিন থেকে পাসপোর্ট সংগ্রহ করতে একদিন চলে যায়। একদিন ছুটি নিলে বেতনও কেটে রাখে মালিক পক্ষ।

 

প্রবাসীদের দাবির প্রেক্ষিতে, সভায় হাইকমিশনার তাদের দাবি পূরণের আশ্বাস দেন এবং দাবি পূরনে , ১৫ ও ১৬ মার্চ দুই দিন ব্যাপী, সেলাঙ্গর রাজ্যের ক্লাং অগ্রণী রেমিটেন্স হাউজ থেকে সরাসরি প্রবাসীদের পাসপোর্ট দিচ্ছে হাইকমিশনের সংশ্লিষ্ট বিভাগ। ২য় দিন চলছে পাসপোর্ট বিতরণ কার্যক্রম। কাঙ্খিত পাসপোর্ট হাতে পেতে দীর্ঘ লাইনে দাড়িয়ে আছেন প্রবাসীরা।

 

 

শনিবার বাংলাদেশ হাইকমিশনের পাসপোর্ট ও ভিসা উইংয়ের কাউন্সেলর মিয়া মোহাম্মাদ কেয়ামউদ্দিন জানিয়েছেন, অনলাইনে যারা আবেদন করেছেন, ক্লাং অগ্রণী রেমিটেন্স হাউজ থেকে হাইকমিশনার মো: শামীম আহসানের দিক নির্দেশনায়, হাতে হাতে পাসপোর্ট বিতরণ করছি। প্রথম দিন শুক্রবার সকাল ৯ টা থেকে বিকেল ৪ টা পর্যন্ত ৩৫০ টি পাসপোর্ট বিতরণ করা হয়েছে। শনিবার (আজ) বিকেল ৪ টা পর্যন্ত চলবে এ সেবা কার্যক্রম। দুই দিনের বিশেষ ব্যবস্থাপনায় প্রায় ৫ শতাধিক প্রবাসী পাসপোর্ট সেবা পাবেন বলে জানিয়েছেন, কাউন্সেলর মিয়া মোহাম্মাদ কেয়ামউদ্দিন। সেবা প্রদানে পাসপোর্ট ও ভিসা উইংয়ের কাউন্সেলরের সঙ্গে রয়েছেন, সংশ্লিষ্ট বিভাগের প্রশাসনিক কর্মকর্তা ছাইদুল ইসলাম ও অফিস সহকারী মোহাম্মদ এমদাদ হোসাইন চৌধুরী।

 

মিয়া মোহাম্মাদ কেয়ামউদ্দিন জানিয়েছেন, যেসব পাসপোর্ট আবেদনকারীর তথ্য অনলাইনে থাকবে শুধুমাত্র তারাই সরাসরি উপস্থিত হয়ে হাতে হাতে পাসপোর্ট গ্রহণ করতে পারবেন। এছাড়াও পোস্ট অফিসের মাধ্যমে পাসপোর্ট বিতরণের সার্ভিসটিও যথারীতি চালু থাকবে। বাংলাদেশ হাইকমিশন মালয়েশিয়ায় বসবাসরত সকল প্রবাসী বাংলাদেশিদের সর্বোচ্চ সেবা প্রদানে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ বলেও তিনি জানান।

 

পাসপোর্ট নিতে আসা প্রবাসী মোহাম্মদ মাহফুজুর রহমান ও মনিরুল ইসলাম বলেন, সরাসরি পাসপোর্ট হাতে পেয়ে আমরা খুশি। এখন যথাসময়ে ভিসা করতে পারব। একটা চিন্তা ছিল যথাসময়ে পাসপোর্ট পাবকিনা? আমাদের দাবির আলোকে সেটি সহজ করে দিয়েছেন আমাদের অভিভাবক হাইকমিশনার মো: শামীম আহসান। মাহফুজ, মনিরুল বলছেন, মালয়েশিয়া প্রবাসীদের সমস্যা সমাধানে হাইকমিশন যেন সবসময় পাশে থাকে এ প্রত্যাশা তাদের।

শেয়ার করুন

পাসপোর্ট বিতরণ: প্রবাসীদের দাবি পূরণ করলেন হাইকমিশনার শামীম আহসান

আপডেটের সময় : ০১:৩৭ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৬ মার্চ ২০২৪

 

পাসপোর্ট প্রদানের মাধ্যমে, মালয়েশিয়ার সেলাঙ্গর রাজ্যে বসবাসরত প্রবাসীদের দাবি পূরণ করলেন, দেশটিতে নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনার মো: শামীম আহসান। দাবি পূরণের আগে, গত ২৭ ফেব্রুয়ারি প্রবাস স্কিম ও বৈধপথে রেমিটেন্স পাঠানো বিষয়ক এক প্রচারণা সভা করেন হাইকমিশনার। সেলাঙ্গর রাজ্যের ক্লাং-এ অগ্রণী রেমিটেন্স হাউজে অনুষ্টিত প্রচারনা সভায় উপস্থিত শত শত প্রবাসী বাংলাদেশিকে ক্লাং-এ বিশেষ ব্যবস্থাপনায় পাসপোর্ট প্রদানের দাবি উত্থাপন করেন হাইকমিশনারের কাছে।

 

প্রবাসীরা বলছিলেন, পোষ্ট অফিস অথবা সরাসরি হাইকশিন থেকে পাসপোর্ট সংগ্রহ করতে একদিন চলে যায়। একদিন ছুটি নিলে বেতনও কেটে রাখে মালিক পক্ষ।

 

প্রবাসীদের দাবির প্রেক্ষিতে, সভায় হাইকমিশনার তাদের দাবি পূরণের আশ্বাস দেন এবং দাবি পূরনে , ১৫ ও ১৬ মার্চ দুই দিন ব্যাপী, সেলাঙ্গর রাজ্যের ক্লাং অগ্রণী রেমিটেন্স হাউজ থেকে সরাসরি প্রবাসীদের পাসপোর্ট দিচ্ছে হাইকমিশনের সংশ্লিষ্ট বিভাগ। ২য় দিন চলছে পাসপোর্ট বিতরণ কার্যক্রম। কাঙ্খিত পাসপোর্ট হাতে পেতে দীর্ঘ লাইনে দাড়িয়ে আছেন প্রবাসীরা।

 

 

শনিবার বাংলাদেশ হাইকমিশনের পাসপোর্ট ও ভিসা উইংয়ের কাউন্সেলর মিয়া মোহাম্মাদ কেয়ামউদ্দিন জানিয়েছেন, অনলাইনে যারা আবেদন করেছেন, ক্লাং অগ্রণী রেমিটেন্স হাউজ থেকে হাইকমিশনার মো: শামীম আহসানের দিক নির্দেশনায়, হাতে হাতে পাসপোর্ট বিতরণ করছি। প্রথম দিন শুক্রবার সকাল ৯ টা থেকে বিকেল ৪ টা পর্যন্ত ৩৫০ টি পাসপোর্ট বিতরণ করা হয়েছে। শনিবার (আজ) বিকেল ৪ টা পর্যন্ত চলবে এ সেবা কার্যক্রম। দুই দিনের বিশেষ ব্যবস্থাপনায় প্রায় ৫ শতাধিক প্রবাসী পাসপোর্ট সেবা পাবেন বলে জানিয়েছেন, কাউন্সেলর মিয়া মোহাম্মাদ কেয়ামউদ্দিন। সেবা প্রদানে পাসপোর্ট ও ভিসা উইংয়ের কাউন্সেলরের সঙ্গে রয়েছেন, সংশ্লিষ্ট বিভাগের প্রশাসনিক কর্মকর্তা ছাইদুল ইসলাম ও অফিস সহকারী মোহাম্মদ এমদাদ হোসাইন চৌধুরী।

 

মিয়া মোহাম্মাদ কেয়ামউদ্দিন জানিয়েছেন, যেসব পাসপোর্ট আবেদনকারীর তথ্য অনলাইনে থাকবে শুধুমাত্র তারাই সরাসরি উপস্থিত হয়ে হাতে হাতে পাসপোর্ট গ্রহণ করতে পারবেন। এছাড়াও পোস্ট অফিসের মাধ্যমে পাসপোর্ট বিতরণের সার্ভিসটিও যথারীতি চালু থাকবে। বাংলাদেশ হাইকমিশন মালয়েশিয়ায় বসবাসরত সকল প্রবাসী বাংলাদেশিদের সর্বোচ্চ সেবা প্রদানে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ বলেও তিনি জানান।

 

পাসপোর্ট নিতে আসা প্রবাসী মোহাম্মদ মাহফুজুর রহমান ও মনিরুল ইসলাম বলেন, সরাসরি পাসপোর্ট হাতে পেয়ে আমরা খুশি। এখন যথাসময়ে ভিসা করতে পারব। একটা চিন্তা ছিল যথাসময়ে পাসপোর্ট পাবকিনা? আমাদের দাবির আলোকে সেটি সহজ করে দিয়েছেন আমাদের অভিভাবক হাইকমিশনার মো: শামীম আহসান। মাহফুজ, মনিরুল বলছেন, মালয়েশিয়া প্রবাসীদের সমস্যা সমাধানে হাইকমিশন যেন সবসময় পাশে থাকে এ প্রত্যাশা তাদের।