ঢাকা , রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ৩০ চৈত্র ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম :
প্রবাসীদের দীর্ঘ প্রতিক্ষার পর মালয়েশিয়ায় চালু হচ্ছে ই-পাসপোর্টের কার্যক্রম প্রবাসীদের ঈদ উদযাপন বাস্তবতা খুঁজে পাওয়া দুষ্কর মালয়েশিয়ায় সড়ক দুর্ঘটনা, চিকিৎসাধীন আরেক বাংলাদেশির মৃত্যু মালয়েশিয়ায় সড়ক দুর্ঘটনায় ৩ বাংলাদেশির মৃত্যু নিউইয়র্কে জাতিসংঘ মহাসচিবের সঙ্গে সার্কের মহাসচিবের সৌজন্য সাক্ষাৎ মালয়েশিয়ায় ঈদুল ফিতরের নামাজ আদায় মালয়েশিয়ায় বুধবার পবিত্র ঈদুল ফিতর অনুমতি ছাড়া আতশবাজি বিক্রি:মালয়েশিয়ায় ২ বাংলাদেশিসহ গ্রেপ্তার ৩ বাংলাদেশি কর্মীদের প্রশংসায় মালয়েশিয়ার সাবেক মন্ত্রী এম সারাভানান কুয়ালালামপুর-ঢাকা রুটে বিমান ভাড়া নিয়ে নৈরাজ্য

মালয়েশিয়ায় বিদেশি কর্মী নিয়োগের নীতিমালা পরিবর্তনে শিল্প কলকারখানা অচলের আশঙ্কা

আহমাদুল কবির, মালয়েশিয়া
  • আপডেটের সময় : ০৩:৫৩ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৭ মার্চ ২০২৪
  • / 84

 

দা ফেডরেশন মালয়েশিয়ান ম্যানুফ্যাকচার (এফএমএম) মালয়েশিয়ান সরকার কর্তৃক বিদেশি কর্মী নিয়োগ নীতিতে হঠাৎ পরিবর্তনে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে। ফেডারেশনটি আশঙ্কা করছে এই পরিবর্তন উৎপাদন খাতের ইতিবাচক গতিপথে বিঘ্ন সৃষ্টি করতে পারে। ৬ মার্চ, এখবর উঠে আসে, মালয় মেইলসহ দেশটির বেশ কয়েকটি সংবাদ মাধ্যমের প্রতিবেদনে।

 

মালয়েশিয়ার শিল্প কলকারখানা অচলের আশঙ্কা করে ফেডরেশনটির সভাপতি, তান শ্রী সোহ থিয়ান লাই, এক বিবৃতিতে এমন আশঙ্কার কথা জানিয়েছেন। ফেডারেশনটি চলমান কোটা বাতিল এবং বিদেশি কর্মী নিয়োগ সংক্রান্ত নতুন নীতিমালার সম্ভাব্য অর্থনৈতিক প্রভাব নিয়ে উদ্বিগ্ন।

 

তিনি উল্লেখ করেন, এই সিদ্ধান্তটি শিল্প খাতের মালিকদের জন্য অপ্রত্যাশিত ছিল, বিশেষ করে যখন এই খাত বিক্রয়, উৎপাদন, মূলধন বিনিয়োগ এবং নিয়োগে বৃদ্ধির আশা করছে।

 

তান শ্রী সোহ আরও বলেন, কোটা বৈধতার মেয়াদ কমানো এবং মাত্র এক মাসের নোটিশ দেওয়ার পাশাপাশি নতুন নিয়োগ প্রক্রিয়ার জন্য নির্ধারিত কোটার সময়সীমা উদ্বেগজনক। তিনি আশঙ্কা করেন যে, এটি কর্মীদের সময়মতো নিয়োগে বাধা সৃষ্টি করবে এবং ফলে উৎপাদন ও সরবরাহ ব্যবস্থাকে বিঘ্নিত করবে।

 

নীতি পরিবর্তনের অধীনে ঘোষিত ১ মাসের সময়সীমার মধ্যে নিয়োগকর্তাদের কলিং ভিসার জন্য (৩১ মার্চ, ২০২৪) এর মধ্যে আবেদন করতে হবে এবং ৩১ মে, ২০২৪ মধ্যে ভিসা, ভিডিআর, মেডিকেল সম্পন্ন করে সকল কর্মীদের মালয়েশিয়ায় প্রবেশ নিশ্চিত করতে হবে, যা প্রায় অসম্ভব।

 

ফেডারেশনটি দেশটির সরকারের নিকট বিশেষ বিবেচনার জন্য অন্তত ৬ মাসের মেয়াদ বাড়ানোর আহ্বান জানিয়েছে, যাতে শিল্প খাত সরকারের লক্ষ্য অর্জনের পাশাপাশি নিজেদের কার্যক্রম স্বাভাবিক রাখতে পারে। এ ক্ষেত্রে তারা নীতি বাস্তবায়নের সময়সীমা বাড়ানো এবং এ খাতের সাথে আরও সংলাপের পরামর্শ দিয়েছে।

 

দেশটির ম্যানুফ্যাকচার ফেডরেশনটি বিশ্বাস করে যে, সরকারের সাথে সহযোগিতার মাধ্যমে আরও একটি কার্যকর এবং টেকসই সমাধানে পৌঁছানো যেতে পারে, যা উভয় পক্ষেরই স্বার্থ রক্ষা করবে।

 

এদিকে ৬ মার্চ, মালয়েশিয়ার ন্যাশনাল চেম্বার অফ কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি (এনসিসিআইএম) অভিবাসী কর্মী নিয়োগের সময়সীমা বেঁধে দেওয়ার সিদ্ধান্তটি প্রত্যাহার করার জন্য সরকারের কাছে আবেদন করছে।

শেয়ার করুন

মালয়েশিয়ায় বিদেশি কর্মী নিয়োগের নীতিমালা পরিবর্তনে শিল্প কলকারখানা অচলের আশঙ্কা

আপডেটের সময় : ০৩:৫৩ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৭ মার্চ ২০২৪

 

দা ফেডরেশন মালয়েশিয়ান ম্যানুফ্যাকচার (এফএমএম) মালয়েশিয়ান সরকার কর্তৃক বিদেশি কর্মী নিয়োগ নীতিতে হঠাৎ পরিবর্তনে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে। ফেডারেশনটি আশঙ্কা করছে এই পরিবর্তন উৎপাদন খাতের ইতিবাচক গতিপথে বিঘ্ন সৃষ্টি করতে পারে। ৬ মার্চ, এখবর উঠে আসে, মালয় মেইলসহ দেশটির বেশ কয়েকটি সংবাদ মাধ্যমের প্রতিবেদনে।

 

মালয়েশিয়ার শিল্প কলকারখানা অচলের আশঙ্কা করে ফেডরেশনটির সভাপতি, তান শ্রী সোহ থিয়ান লাই, এক বিবৃতিতে এমন আশঙ্কার কথা জানিয়েছেন। ফেডারেশনটি চলমান কোটা বাতিল এবং বিদেশি কর্মী নিয়োগ সংক্রান্ত নতুন নীতিমালার সম্ভাব্য অর্থনৈতিক প্রভাব নিয়ে উদ্বিগ্ন।

 

তিনি উল্লেখ করেন, এই সিদ্ধান্তটি শিল্প খাতের মালিকদের জন্য অপ্রত্যাশিত ছিল, বিশেষ করে যখন এই খাত বিক্রয়, উৎপাদন, মূলধন বিনিয়োগ এবং নিয়োগে বৃদ্ধির আশা করছে।

 

তান শ্রী সোহ আরও বলেন, কোটা বৈধতার মেয়াদ কমানো এবং মাত্র এক মাসের নোটিশ দেওয়ার পাশাপাশি নতুন নিয়োগ প্রক্রিয়ার জন্য নির্ধারিত কোটার সময়সীমা উদ্বেগজনক। তিনি আশঙ্কা করেন যে, এটি কর্মীদের সময়মতো নিয়োগে বাধা সৃষ্টি করবে এবং ফলে উৎপাদন ও সরবরাহ ব্যবস্থাকে বিঘ্নিত করবে।

 

নীতি পরিবর্তনের অধীনে ঘোষিত ১ মাসের সময়সীমার মধ্যে নিয়োগকর্তাদের কলিং ভিসার জন্য (৩১ মার্চ, ২০২৪) এর মধ্যে আবেদন করতে হবে এবং ৩১ মে, ২০২৪ মধ্যে ভিসা, ভিডিআর, মেডিকেল সম্পন্ন করে সকল কর্মীদের মালয়েশিয়ায় প্রবেশ নিশ্চিত করতে হবে, যা প্রায় অসম্ভব।

 

ফেডারেশনটি দেশটির সরকারের নিকট বিশেষ বিবেচনার জন্য অন্তত ৬ মাসের মেয়াদ বাড়ানোর আহ্বান জানিয়েছে, যাতে শিল্প খাত সরকারের লক্ষ্য অর্জনের পাশাপাশি নিজেদের কার্যক্রম স্বাভাবিক রাখতে পারে। এ ক্ষেত্রে তারা নীতি বাস্তবায়নের সময়সীমা বাড়ানো এবং এ খাতের সাথে আরও সংলাপের পরামর্শ দিয়েছে।

 

দেশটির ম্যানুফ্যাকচার ফেডরেশনটি বিশ্বাস করে যে, সরকারের সাথে সহযোগিতার মাধ্যমে আরও একটি কার্যকর এবং টেকসই সমাধানে পৌঁছানো যেতে পারে, যা উভয় পক্ষেরই স্বার্থ রক্ষা করবে।

 

এদিকে ৬ মার্চ, মালয়েশিয়ার ন্যাশনাল চেম্বার অফ কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি (এনসিসিআইএম) অভিবাসী কর্মী নিয়োগের সময়সীমা বেঁধে দেওয়ার সিদ্ধান্তটি প্রত্যাহার করার জন্য সরকারের কাছে আবেদন করছে।