ঢাকা , রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ৩০ চৈত্র ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম :
প্রবাসীদের দীর্ঘ প্রতিক্ষার পর মালয়েশিয়ায় চালু হচ্ছে ই-পাসপোর্টের কার্যক্রম প্রবাসীদের ঈদ উদযাপন বাস্তবতা খুঁজে পাওয়া দুষ্কর মালয়েশিয়ায় সড়ক দুর্ঘটনা, চিকিৎসাধীন আরেক বাংলাদেশির মৃত্যু মালয়েশিয়ায় সড়ক দুর্ঘটনায় ৩ বাংলাদেশির মৃত্যু নিউইয়র্কে জাতিসংঘ মহাসচিবের সঙ্গে সার্কের মহাসচিবের সৌজন্য সাক্ষাৎ মালয়েশিয়ায় ঈদুল ফিতরের নামাজ আদায় মালয়েশিয়ায় বুধবার পবিত্র ঈদুল ফিতর অনুমতি ছাড়া আতশবাজি বিক্রি:মালয়েশিয়ায় ২ বাংলাদেশিসহ গ্রেপ্তার ৩ বাংলাদেশি কর্মীদের প্রশংসায় মালয়েশিয়ার সাবেক মন্ত্রী এম সারাভানান কুয়ালালামপুর-ঢাকা রুটে বিমান ভাড়া নিয়ে নৈরাজ্য

মালয়েশিয়ায় প্রতারণার শিকার, চাকরিহীন ১০৪ বাংলাদেশি

আহমাদুল কবির, মালয়েশিয়া
  • আপডেটের সময় : ০১:১৪ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
  • / 79

 

স্বপ্নের দেশ মালয়েশিয়ায় গিয়ে প্রতারণার শিকার ১০৪ বাংলাদেশি। চাকরি ছাড়াই রাজধানী শহরের চেরাসের একটি বাসায় তাদের আটকে রাখা হয়েছে। ২০২৩ সালের নভেম্বরে কাজের ভিসায় আসার পর থেকে এসব বাংলাদেশি কর্মী চাকরিহীন রয়েছেন। সময় কাটছে তাদের দুর্বিষহ অবস্থায়।

 

বাংলাদেশি কর্মীদের অধিকার নিয়ে সেই দেশে কাজ করা ব্রিটিশ শ্রম অধিকার কর্মী এন্ডি হল বলেছেন, ১০৪ জন কর্মী মালয়েশিয়ায় কর্মসংস্থান নিশ্চিত করতে ১৯,৫০০ থেকে ২১,৭০০ রিঙ্গিত নিয়োগ ফি প্রদান করেছে, যেখানে তাদের ভাল জীবনযাত্রার সুবিধা এবং উচ্চ বেতনের চাকরির প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছিল। এন্ডি হল বলেন, চেরাসের একটি নির্মাণ প্রতিষ্ঠান তাদের নিয়োগ দিয়েছে।

 

হলের সাক্ষাৎকার নেওয়া তিনজন কর্মী বলেছেন, নিয়োগের ফি প্রদান করা তাদের ঋণের বন্ধনে ঠেলে দিয়েছে কারণ ফি সুরক্ষিত করার জন্য তাদের প্রচুর ধার নিতে হয়েছিল। প্রতারণার শিকার একজন কর্মী এন্ডি হলকে বলছেন, আমি একটি বিশাল ঋণের মধ্যে পড়ে যাচ্ছি। আমি বিভিন্ন উৎস থেকে টাকা ধার করার সময় প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলাম যে বেতন পেয়ে মাসিক কিস্তিতে পরিশোধ করব। কিন্তু আমি পরিশোধ করতে অক্ষম। ঋণদাতারা আমার পরিবারকে হুমকি দিচ্ছে।

 

কর্মীরা জানান, আসার পর তাদের পাসপোর্ট কেড়ে নেয়া হয় এবং তারা শারীরিক ও মৌখিক নির্যাতনের শিকার হয়। এছাড়াও, যে ব্যক্তি তাদের বিমানবন্দর থেকে রিসিভ করে নিয়ে এসেছিল,তার দ্বারা তাদের প্রাণনাশের হুমকি দেওয়া হচ্ছে।

 

২৫ ফেব্রুয়ারি ফ্রি-মালয়েশিয়াটুডেতে এন্ডি হলের বরাতদিয়ে এক প্রতিবেদনে বলা হয়, ১০০ জনেরও বেশি কর্মীর জন্য একটি মাত্র টয়লেট এবং একটি রুমের মধ্যে গাদাগাদি করে তাদের থাকতে হচ্ছে । বেশিরভাগ চাল, মসুর এবং ম্যাশড আলুর অপর্যাপ্ত খাবার তাদের খাওয়ানো হচ্ছে, একজন কর্মী দাবি করেছেন তার কাজের পরিস্থিতি সম্পর্কে আপডেট চাওয়ার পরে চার দিন পর্যন্ত তাকে খাবার দেওয়া হয়নি। হল বলছেন, প্রতিশ্রুত চাকরি পাওয়ার পরিবর্তে তাদের কোনো কাজ নেই এবং কোনো আয় নেই। এ পরিস্থিতি চরম বিপাকে রয়েছেন ১০৪ জন বাংলাদেশি কর্মী।

শেয়ার করুন

মালয়েশিয়ায় প্রতারণার শিকার, চাকরিহীন ১০৪ বাংলাদেশি

আপডেটের সময় : ০১:১৪ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

 

স্বপ্নের দেশ মালয়েশিয়ায় গিয়ে প্রতারণার শিকার ১০৪ বাংলাদেশি। চাকরি ছাড়াই রাজধানী শহরের চেরাসের একটি বাসায় তাদের আটকে রাখা হয়েছে। ২০২৩ সালের নভেম্বরে কাজের ভিসায় আসার পর থেকে এসব বাংলাদেশি কর্মী চাকরিহীন রয়েছেন। সময় কাটছে তাদের দুর্বিষহ অবস্থায়।

 

বাংলাদেশি কর্মীদের অধিকার নিয়ে সেই দেশে কাজ করা ব্রিটিশ শ্রম অধিকার কর্মী এন্ডি হল বলেছেন, ১০৪ জন কর্মী মালয়েশিয়ায় কর্মসংস্থান নিশ্চিত করতে ১৯,৫০০ থেকে ২১,৭০০ রিঙ্গিত নিয়োগ ফি প্রদান করেছে, যেখানে তাদের ভাল জীবনযাত্রার সুবিধা এবং উচ্চ বেতনের চাকরির প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছিল। এন্ডি হল বলেন, চেরাসের একটি নির্মাণ প্রতিষ্ঠান তাদের নিয়োগ দিয়েছে।

 

হলের সাক্ষাৎকার নেওয়া তিনজন কর্মী বলেছেন, নিয়োগের ফি প্রদান করা তাদের ঋণের বন্ধনে ঠেলে দিয়েছে কারণ ফি সুরক্ষিত করার জন্য তাদের প্রচুর ধার নিতে হয়েছিল। প্রতারণার শিকার একজন কর্মী এন্ডি হলকে বলছেন, আমি একটি বিশাল ঋণের মধ্যে পড়ে যাচ্ছি। আমি বিভিন্ন উৎস থেকে টাকা ধার করার সময় প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলাম যে বেতন পেয়ে মাসিক কিস্তিতে পরিশোধ করব। কিন্তু আমি পরিশোধ করতে অক্ষম। ঋণদাতারা আমার পরিবারকে হুমকি দিচ্ছে।

 

কর্মীরা জানান, আসার পর তাদের পাসপোর্ট কেড়ে নেয়া হয় এবং তারা শারীরিক ও মৌখিক নির্যাতনের শিকার হয়। এছাড়াও, যে ব্যক্তি তাদের বিমানবন্দর থেকে রিসিভ করে নিয়ে এসেছিল,তার দ্বারা তাদের প্রাণনাশের হুমকি দেওয়া হচ্ছে।

 

২৫ ফেব্রুয়ারি ফ্রি-মালয়েশিয়াটুডেতে এন্ডি হলের বরাতদিয়ে এক প্রতিবেদনে বলা হয়, ১০০ জনেরও বেশি কর্মীর জন্য একটি মাত্র টয়লেট এবং একটি রুমের মধ্যে গাদাগাদি করে তাদের থাকতে হচ্ছে । বেশিরভাগ চাল, মসুর এবং ম্যাশড আলুর অপর্যাপ্ত খাবার তাদের খাওয়ানো হচ্ছে, একজন কর্মী দাবি করেছেন তার কাজের পরিস্থিতি সম্পর্কে আপডেট চাওয়ার পরে চার দিন পর্যন্ত তাকে খাবার দেওয়া হয়নি। হল বলছেন, প্রতিশ্রুত চাকরি পাওয়ার পরিবর্তে তাদের কোনো কাজ নেই এবং কোনো আয় নেই। এ পরিস্থিতি চরম বিপাকে রয়েছেন ১০৪ জন বাংলাদেশি কর্মী।