ঢাকা , শনিবার, ০৯ ডিসেম্বর ২০২৩, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

মালয়েশিয়ায় বিদেশি কর্মী নিয়োগে গতি বাড়ানোর আহবান মানবসম্পদমন্ত্রীর

এম সারাভানান, মানবসম্পদ মন্ত্রী, মালয়েশিয়া

Print Friendly, PDF & Email

 

মালয়েশিয়ায় বিদেশি কর্মী নিয়োগে সরকার অনুমোদন দেওয়া সত্ত্বেও বাড়ছে না গতি। কা‍‍র্যক্রমে গতি বাড়াতে নিয়োগকর্তাদের প্রতি আহবান জানিয়েছেন দেশটির মানবসম্পদ মন্ত্রী দাতুক সেরি এম সারাভানান। মন্ত্রী বলেছেন, সরকার শুধুমাত্র নিয়োগকর্তাদের ৪০০,০০০ কোটার সমাধান এবং অনুমতি দেওয়ার ক্ষেত্রে ভূমিকা পালন করেছে। এখন নিয়োগকারীদের দায়িত্ব বিদেশি কর্মী নিয়োগ তরান্বিত করা।

অনেকের ধারণা মন্ত্রণালয় পর্যায়ে সমস্যা আছে কিন্তু মন্ত্রণালয়ে এখন আর কোনো সমস্যা নেই। মন্ত্রণালয়, উৎস দেশগুলোর মধ্যে সমঝোতা স্মারক এবং কোটা  অনুমোদন দেয়ার কাজটি করেছে৤

বৃহস্পতিবার (২২ সেপ্টেম্বর) মেনারা মানিকভাসাগামে মিট দ্য কাস্টমার ডে প্রোগ্রামে, সংবাদ সম্মেলনে মানবসম্পদ মন্ত্রী বলেন, “এখন পর্যন্ত, আমরা সিদ্ধান্ত নিতে পারি না যে কোন দেশে আমাদের বাছাই করতে হবে কারণ আমাদের প্রায় ১৪টি উত্স দেশ রয়েছে। অনেক লোক এই বিষয়ে সচেতন, মানবসম্পদ মন্ত্রণালয় শুধুমাত্র বিশেষ অনুমোদন দেয় এবং নিয়োগকর্তাদের সিদ্ধান্ত নিতে হয়৤”

মন্ত্রী বলেন, “বাংলাদেশ এবং ইন্দোনেশিয়ার শ্রমিকদের ভাষা, ধর্ম এবং সংস্কৃতির কারণে নিয়োগকর্তারা প্রায়শই বেছে নেন। তবে তিনি নিয়োগকর্তাদেরকে অন্যান্য দেশ থেকেও কর্মী নিয়োগের আহ্বান জানান। শুধু একটি দেশের উপর নির্ভর করবেন না কারণ যখন আমরা একটি দেশের উপর নির্ভর করি, তখন আমরা যখন সমঝোতা স্মারকগুলি নিয়ে আলোচনা করি তখন অনেকগুলি শর্ত সেট করা হয়৤  শ্রীলঙ্কার শ্রমিকরা এর আগেও গৃহকর্মী সেক্টরে কাজ করেছিল।”

এর আগে ২১ সেপ্টেম্বর সারাভানান বলেছেন, সরকার শ্রম সরবরাহের জন্য শ্রীলঙ্কা সরকারের সরকারী আবেদন অনুমোদন করেছে এবং বর্তমানে দেশটির গুরুত্বপূ‍‍র্ণ খাতে অর্থনৈতিক সংকটের পরে ১০,০০০ কর্মী কোটার জন্য আবেদন করেছে।

এদিকে, রেস্তোঁরাগুলিতে অপর্যাপ্ত কর্মীদের সমস্যা সম্পর্কে মন্তব্য করে সারাভানান বলেছিলেন, আগামী সপ্তাহে সমস্যাটি সমাধান হবে বলে আশা করা হচ্ছে।

বাংলাদেশ প্রসঙ্গে এম সারাভানান বলেছেন, আগে কিছু পক্ষ বিতর্ক করেছিল যে আমরা কেবল ২৫টি এজেন্সি সীমিত করেছি কিন্তু এখন আমরা সেগুলি বাড়িয়েছি। মন্ত্রিসভা ১০০টি এজেন্সি (বাংলাদেশ থেকে) বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে এবং বৃহস্পতিবার পর্যন্ত ৭৫টি এজেন্সি অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

এদিকে,  ১০,০০০ হাজার শ্রীলঙ্কার কর্মী প্রবেশের সাথে জড়িত মোট সংস্থার সংখ্যা এখনও সরকার অনুমোদিত হয়নি এবং সংস্থাগুলির তালিকা অবশ্যই উত্স দেশের সাথে নিবন্ধিত হতে হবে বলেও জানান মানবসম্পদমন্ত্রী।

Tag :

মালয়েশিয়ায় বিদেশি কর্মী নিয়োগে গতি বাড়ানোর আহবান মানবসম্পদমন্ত্রীর

আপডেট: ১১:১৬ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২২
Print Friendly, PDF & Email

 

মালয়েশিয়ায় বিদেশি কর্মী নিয়োগে সরকার অনুমোদন দেওয়া সত্ত্বেও বাড়ছে না গতি। কা‍‍র্যক্রমে গতি বাড়াতে নিয়োগকর্তাদের প্রতি আহবান জানিয়েছেন দেশটির মানবসম্পদ মন্ত্রী দাতুক সেরি এম সারাভানান। মন্ত্রী বলেছেন, সরকার শুধুমাত্র নিয়োগকর্তাদের ৪০০,০০০ কোটার সমাধান এবং অনুমতি দেওয়ার ক্ষেত্রে ভূমিকা পালন করেছে। এখন নিয়োগকারীদের দায়িত্ব বিদেশি কর্মী নিয়োগ তরান্বিত করা।

অনেকের ধারণা মন্ত্রণালয় পর্যায়ে সমস্যা আছে কিন্তু মন্ত্রণালয়ে এখন আর কোনো সমস্যা নেই। মন্ত্রণালয়, উৎস দেশগুলোর মধ্যে সমঝোতা স্মারক এবং কোটা  অনুমোদন দেয়ার কাজটি করেছে৤

বৃহস্পতিবার (২২ সেপ্টেম্বর) মেনারা মানিকভাসাগামে মিট দ্য কাস্টমার ডে প্রোগ্রামে, সংবাদ সম্মেলনে মানবসম্পদ মন্ত্রী বলেন, “এখন পর্যন্ত, আমরা সিদ্ধান্ত নিতে পারি না যে কোন দেশে আমাদের বাছাই করতে হবে কারণ আমাদের প্রায় ১৪টি উত্স দেশ রয়েছে। অনেক লোক এই বিষয়ে সচেতন, মানবসম্পদ মন্ত্রণালয় শুধুমাত্র বিশেষ অনুমোদন দেয় এবং নিয়োগকর্তাদের সিদ্ধান্ত নিতে হয়৤”

মন্ত্রী বলেন, “বাংলাদেশ এবং ইন্দোনেশিয়ার শ্রমিকদের ভাষা, ধর্ম এবং সংস্কৃতির কারণে নিয়োগকর্তারা প্রায়শই বেছে নেন। তবে তিনি নিয়োগকর্তাদেরকে অন্যান্য দেশ থেকেও কর্মী নিয়োগের আহ্বান জানান। শুধু একটি দেশের উপর নির্ভর করবেন না কারণ যখন আমরা একটি দেশের উপর নির্ভর করি, তখন আমরা যখন সমঝোতা স্মারকগুলি নিয়ে আলোচনা করি তখন অনেকগুলি শর্ত সেট করা হয়৤  শ্রীলঙ্কার শ্রমিকরা এর আগেও গৃহকর্মী সেক্টরে কাজ করেছিল।”

এর আগে ২১ সেপ্টেম্বর সারাভানান বলেছেন, সরকার শ্রম সরবরাহের জন্য শ্রীলঙ্কা সরকারের সরকারী আবেদন অনুমোদন করেছে এবং বর্তমানে দেশটির গুরুত্বপূ‍‍র্ণ খাতে অর্থনৈতিক সংকটের পরে ১০,০০০ কর্মী কোটার জন্য আবেদন করেছে।

এদিকে, রেস্তোঁরাগুলিতে অপর্যাপ্ত কর্মীদের সমস্যা সম্পর্কে মন্তব্য করে সারাভানান বলেছিলেন, আগামী সপ্তাহে সমস্যাটি সমাধান হবে বলে আশা করা হচ্ছে।

বাংলাদেশ প্রসঙ্গে এম সারাভানান বলেছেন, আগে কিছু পক্ষ বিতর্ক করেছিল যে আমরা কেবল ২৫টি এজেন্সি সীমিত করেছি কিন্তু এখন আমরা সেগুলি বাড়িয়েছি। মন্ত্রিসভা ১০০টি এজেন্সি (বাংলাদেশ থেকে) বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে এবং বৃহস্পতিবার পর্যন্ত ৭৫টি এজেন্সি অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

এদিকে,  ১০,০০০ হাজার শ্রীলঙ্কার কর্মী প্রবেশের সাথে জড়িত মোট সংস্থার সংখ্যা এখনও সরকার অনুমোদিত হয়নি এবং সংস্থাগুলির তালিকা অবশ্যই উত্স দেশের সাথে নিবন্ধিত হতে হবে বলেও জানান মানবসম্পদমন্ত্রী।