1. admin@probashbarta.com : pbadmin :
  2. info@probashbarta.com : PBC Desk02 : PBC Desk02
  3. mhgbangla@gmail.com : Meraj Hossain Gazi : Meraj Hossain Gazi
মালয়েশিয়ার পর্যটনখাত ফের চাঙ্গা - প্রবাস বার্তা
শনিবার, ০২ জুলাই ২০২২, ০৯:০৪ অপরাহ্ন

মালয়েশিয়ার পর্যটনখাত ফের চাঙ্গা

আহমাদুল কবির, মালয়েশিয়া
  • আপডেট: শনিবার, ৭ মে, ২০২২
আলোর সেতারের কুয়ালা কেদাহ টার্মিনালে ফেরিতে লাংকাউইগামী পর্যটকরা।
Print Friendly, PDF & Email

ঈদ-উল- ফিতরের ছুটি কাটাতে পরিবার নিয়ে বেড়িয়ে পরেন মালয়েশিয়ান নাগরিকরা। বিদেশী পর্যটক সহ অনেকেই দেশের আকর্ষণীয় গন্তব্যগুলি দেখার সুযোগ হাত ছাড়া করছেন ন। দেশটির প্রতিটি রাজ্যে হোটেল এবং হোমস্টে বুকিং বৃদ্ধি পেয়েছে, যা কোভিড -১৯ মহামারীজনিত কারণে দুই বছর মন্দা থাকার পরে দেশেটির হোটেল এবং পর্যটন খাত ফের চাঙ্গা হয়ে উঠেছে।

মালয়েশিয়া বাজেট অ্যান্ড বিজনেস হোটেল অ্যাসোসিয়েশনের (মাইবিএইচএ) ডেপুটি প্রেসিডেন্ট শ্রী গণেশ মিচিয়েলের মতে, কোটা কিনাবালু, সাবাহ এবং গেনটিং হাইল্যান্ডস, পাহাং-এ সর্বোচ্চ সংখ্যক বুকিং রেকর্ড করা হয়েছে, যা সাধারণ দিনের তুলনায় ১০০% পর্যন্ত বৃদ্ধি পেয়েছে। বড় শহরগুলির পাশাপাশি, জোহরের বাতু পাহাত এবং মেরসিং-এর মতো বেশ কয়েকটি ছোট জেলা শহরে হোটেল বুকিংয়ে উল্লেখযোগ্য বৃদ্ধি রেকর্ড করা হয়েছে এবং এর প্রবণতা মে মাসের শেষ বা জুনের শুরু পর্যন্ত অব্যাহত থাকবে বলে আশা করছেন গণেশ মিচিয়েল।

গণেশ মিচিয়েল বলেন, সরকার বিধিনিষেধ প্রত্যাহার করলেও মাইবিএইচএ হোটেল অপারেটরদের তাদের সকল  ক্লায়েন্টদের সতর্কতা হিসাবে এসওপি অনুসরণ করার জন্য উত্সাহিত করার পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে।

কাম্পুংস্টে এবং হোমস্টে মালয়েশিয়া অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি জোহাইম মুহাম্মাদ সোরি বলেন, হোমস্টে গন্তব্যের জন্য অপ্রতিরোধ্য বুকিং প্রমাণ করে যে আবাসন ফি সামান্য বৃদ্ধি হলেও পর্যটকরা কাম্পুং পরিবেশে বসবাস করতে পছন্দ করে। তিনি আরও বলেন, “দাম খুব বেশি বাড়েনি, জীবনযাত্রার উচ্চ খরচের কারণে প্রায় ১০ বা ২০ হতে পারে, কিন্তু গুণগত মান হোটেলের মতোই, এবং গ্রামের পরিবেশে পর্যটকদের ছুটি কাটানোর জন্য হোমস্টেকে জনপ্রিয় করে তোলেছে”।

ক্যামেরন হাইল্যান্ডে একটি হোমস্টের অপারেটর ইন্তান আজনিতা (৪৯) বলেছেন, তিনি ৩০ এপ্রিল থেকে বিপুল সংখ্যক বুকিং পেয়েছেন। কেদাহে, আলোর সেতারের কুয়ালা কেদাহ ফেরি টার্মিনালটি লোকে লোকারণ্য।  অনেক পর্যটক লাংকাউইতে ঈদেও ছুটি কাটিয়েছেন। তাদের মধ্যে নিনা শাকিলা আবদুল্লাহ (৩৩), যিনি বলছিলেন যে তিনি জিত্রায় তার খালার সাথে ঈদ-উল-ফিতর উদযাপন করার পরে দ্বীপের রিসোর্টে তিন দিন কাটিয়েছেন।
নেগেরি সেম্বিলানে, পোর্ট ডিকসনের তেলুক কেমাং সৈকতে রাজ্যের বাইরে থেকে আসা অনেক পরিবার এবং বন্ধুদের সাথে ভাল সময় কাটিয়েছেন।

কেদাহ”র নাদিয়া হালিম (৩২) বলেছেন, পোর্ট ডিকসনে ভাল সময় কাটানোর পাশাপাশি জনপ্রিয় ঐতিহ্যবাহী খাবার খেয়েছেন তিনি।

জোহরের, মালয়েশিয়ান অ্যাসোসিয়েশন অফ হোটেলস (এমএএইচ) জোহর চ্যাপ্টারের চেয়ারম্যান ইভান টিও বলেছেন, হোটেলের কক্ষগুলি, বিশেষ করে জোহর বাহরু, দেসারু এবং কোটা টিংগিতে স্থানীয় এবং সিঙ্গাপুরবাসীরা প্রায় সম্পূর্ণভাবে বুক করে রেখেছেন, যেখানে ইস্কান্দার পুটেরির কাছে লেগোল্যান্ড মালয়েশিয়া রিসোর্ট থিম পার্ক-এ অনেক পর্যটক এসেছেন।

থিম পার্কের একজন দর্শনার্থী আলিয়া নাতাশা আব্দুল রহমান (৩১) জানান, তিনি তার আত্মীয়ের বাড়িতে ঈদ-উল-ফিতর উদযাপন করার পরে থিম পার্ক দেখার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন এবং তার সন্তানরা সবসময় এই জায়গাটিতে আসতে পছন্দ করে।

এছাড়া পেনাং হিল এবং বাতু ফেরিংঙ্গি পর্যটকদের সমাগম ছিল প্রচুর।

সিঙ্গাপুরে বসবাসকারী একজন জাপানি নাগরিক নোয়ামি হিকারু (৪২) বলেছিলেন,  এটি মালয়েশিয়া রাজ্যে তার প্রথম ভ্রমণ ছিল এবং তা ছিল পেনাং হিল ভ্রমণ। তিনি ভ্রমণ ম্যাগাজিনে ব্রিটিশ আমলে পেনাং পাহাড়ের ইতিহাস সম্পর্কে অনেক কিছু পড়েছেন, এবং যদি তার আবার পেনাং দেখার সুযোগ হয়, তিনি পাহাড়ের চূড়ায় আরোহণ করবেন।

খবরটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2022 Probashbarta.com
Developed by Online Solution xYz