1. monir212@gmail.com : admin :
  2. support@wordpress.org : Support :
  3. merajhgazi@gmail.com : News Desk : Meraj Hossen Gazi
  4. desk@probashbarta.com : News Desk : News Desk
শুক্রবার, ২১ জানুয়ারী ২০২২, ০৭:৪৮ পূর্বাহ্ন

যুগান্তকারী বাংলাদেশ-মালয়েশিয়া নতুন  সমঝোতা স্মারক

আহমাদুল কবির, মালয়েশিয়া
  • প্রকাশিত : মঙ্গলবার, ২১ ডিসেম্বর, ২০২১
Print Friendly, PDF & Email

 

১৯ ডিসেম্বর বাংলাদেশ থেকে মালয়েশিয়ায় কর্মী নিয়োগ সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরের পরবর্তী প্রেস বিজ্ঞপ্তি এবং ঢাকায় প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় এর মন্ত্রী ও সচিব এর সংবাদ সম্মেলন সূত্রে জানা গেছে যে, অতীতের যে কোন সময়ের তুলনায় এবার কর্মীদের অধিকার ও কল্যাণ প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে মর্যাদাবান করে তোলার দিকে বেশি গুরুত্ব দেয়া হয়েছে। অভিবাসন ব্যয় এবার অতিরিক্ত হবে না এমনটাই বলা হয়েছে।

কর্মীর জন্য গুরুত্বপূর্ন সুবিধাদি নিশ্চিত করা হয়েছে, কর্মীর বাংলাদেশ থেকে মালয়েশিয়ায় যাবার বিমান ভাড়া এবং চুক্তি শেষে বাংলাদেশে ফিরে আসার বিমান ভাড়া মালয়েশিয়ার নিয়োগকর্তা/ কোম্পানী বহন করবে। মালয়েশিয়ায় আসার পর স্বাস্থ্য পরীক্ষার খরচ, ভিসা ফি, ইমিগ্রেশন ফি, করোনা পরীক্ষার খরচ, কোয়ারেন্টাইনের খরচ ইত্যাদিসহ মালয়েশিয়া প্রান্তে সকল অভিবাসন ব্যয় মালয়েশিয়ার কোম্পানী বহন করবে। মালয়েশিয়ায় কর্মীর মান সম্মত বাসস্থান ও আনুষঙ্গিক উপকরণ নিয়োগকর্তা ফ্রি দিবে। কর্মীর স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা বীমার খরচ কোম্পানী বহন করবে।

সপ্তাহে ১ দিন ছুটি ( বিশ্রামের দিন) পাবে এবং দৈনিক ৮ ঘন্টার বেশী কাজ করলে ওভারটাইম পাবে। বিশ্রামের দিন এবং পাবলিক ছুটির দিনে কাজের জন্য মালয়েশিয়ার আইন অনুযায়ী আলাদা রেটে বেতন পাবে। বেতন ভাতা কর্মীর নামে খোলা ব্যাংক একাউন্টের মাধ্যমে প্রতি মাসের ৭ তারিখের মধ্যে দিবে। নগদ বেতন দিতে পারবে না।মালয়েশিয়ার আইন অনুযায়ী বাংলাদেশী কর্মী বার্ষিক ছুটি এবং অসুস্থতা ছুটি ( মেডিকেল লিভ) পাবে।

কার্মক্ষেত্রে দূর্ঘটনায় বা কর্মপরিবেশের কারণে কোন অংগ অস্থায়ী বা স্থায়ীভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হলে ক্ষতিপূরণ পাবে এবং স্থায়ীভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হলে বাংলাদেশে ফেরত গেলেও কর্মী আজীবন পেনশন পাবে। কর্মক্ষেত্রে দূর্ঘটনার কারনে বা কর্ম পরিবেশের কারণে মৃত্যুবরন করলে মৃতদেহ দেশে পরিবহন খরচ পাবেন এবং কর্মীর পরিবার এককালীন ক্ষতিপূরণ পাবে ও স্ত্রী-সন্তানগন দীর্ঘমেয়াদী পেনশন পাবে। এসব সুবিধা বাংলাদেশে বসেই পাবে।

উপরের সুবিধা পাবার শক্তি হলো দেশ ত্যাগের আগে নিয়োগ চুক্তি সই করা । এ নিয়োগ চুক্তি সমঝোতা স্মারকের অংশ, তাই কর্মীর সুরক্ষা নিশ্চিত। অভিবাসন বিষয়ক সিনিয়র সাংবাদিক গাজী মেরাজ হোসেন বলেন, ‘প্রাপ্য সুবিধার নিশ্চিত করার ফলে প্রবাসে কর্মীর অবস্থান সুখের ও মর্যাদার হবে এবং দেশে পরিবার ভালো থাকবে। ‘

এটিএন বাংলার কারেন্ট এ্যাফেয়ার্স এডিটর কেরামত উল্লাহ বিপ্লব বলেন, ‘ প্রবাসী কর্মীর অবৈধ হবার অন্যতম কারণ কর্মস্থলের সুযোগ সুবিধা না পাওয়া এবং প্রতারণার শিকার হওয়া। সমঝোতা স্মারকে সেদিকে বিশেষ নজর দেওয়া হয়েছে যা বাস্তবায়ন করতে পারলে যুগান্তকারী হবে।’

অভিবাসনের সিনিয়র সাংবাদিক মোস্তফা ফিরোজ বলেন, ‘ দুই দেশের মধ্যে সম্পাদিত চুক্তি উন্মুক্ত করা হয় নি যেখানে কর্মী, উভয় দেশের সরকার , নিয়োগ কর্তা, মালয়েশিয়ান রিক্রুটিং এজেন্সি এবং বাংলাদেশের রিক্রুটিং এজেন্সির দায় দায়িত্ব সম্পর্কে বলা হয়েছে সেগুলো অভিবাসন প্রত্যাশী ও তার পরিবারের জন্য উন্মুক্ত করে দেওয়া হলে সচেতনতা বৃদ্ধি পাবে এবং এভাবেই অভিবাসনের অনিয়ম দূর করা সম্ভব হবে। সে বিষয়ে মন্ত্রণালয় উপযুক্ত ব্যবস্থা গ্রহণ করবে আশাকরি।’

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই জাতীয় আরও খবর
© 2018 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। এই ওয়েবসাইটের লেখ, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যাবহার বেআইনি
Theme Customized BY LatestNews