1. monir212@gmail.com : admin :
  2. support@wordpress.org : Support :
  3. merajhgazi@gmail.com : News Desk : Meraj Hossen Gazi
  4. desk@probashbarta.com : News Desk : News Desk
শনিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২১, ০২:১৭ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
মালদ্বীপে বাংলাদেশি ব্যাংকের শাখা চায় প্রবাসীরা মালয়েশিয়ায় হাইকমিশনের উদ্যোগে সশস্ত্র বাহিনী দিবস উদযাপন দশ দিনের সফরে গ্রীস ও দুবাই গেলেন প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রী মানব পাচারের কারণ খুঁজে সমাধানের আহ্বান বাংলাদেশের মালদ্বীপের উপ-রাষ্ট্রপতির সাথে প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রীর বৈঠক “মালদ্বীপে বাংলাদেশি কর্মীরা বিভিন্ন সেক্টরে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখছে” ইতালিতে কর্মস্থলে বাংলাদেশির মৃত্যু মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশিসহ ১২৯ অভিবাসী আটক মালদ্বীপের ভাইস প্রেসিডেন্টের বাংলাদেশ-কোরিয়া কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র পরিদর্শন ঢাকা-ব্যাংকক রুটে আবারো চালু হচ্ছে বিমানের ফ্লাইট

মালয়েশিয়া প্রবাসীদের সমস্যার ইতিবাচক সমাধানের চেষ্টা অব্যাহত হাইকমিশনের

আহমাদুল কবির, মালয়েশিয়া
  • প্রকাশিত : রবিবার, ২৩ আগস্ট, ২০২০
Print Friendly, PDF & Email

 

করোনাভাইরাস মহামারির মধ্যে বিভিন্ন দেশের অভিবাসী  কর্মীরা কঠিন সময় পার করছেন। তবে, এরই মধ্যে মালয়েশিয়ায় বসবাসরত বাংলাদেশী অভিবাসী কর্মীদের সমস্যার ইতিবাচক সমাধানের প্রচেষ্টা অব্যাহত রেখেছে বাংলাদেশ দূতাবাস। দক্ষ কূটনৈতিক প্রচেষ্টার মাধ্যমে করোনা পরিস্থিতির মধ্যেও বৈধ ও অবৈধ নির্বিশেষে  বাংলাদেশী কর্মীদের করোনা চিকিৎসা,  শ্রমিক পুনর্বাসন, কোম্পানি পরিবর্তন  সুবিধা প্রদান করেছে এবং ডিটেনশন ক্যাম্পে থাকা কর্মীদের এবং  অবৈধ শ্রমিকদের বৈধকরণের ইতিবাচক সম্মতি প্রদান  মালয়েশিয়ার সরকারের সুদৃষ্টির সুস্পষ্ট ইঙ্গিত বহন করছে। করোনা পরিস্থিতিতে দুই দেশের অর্থনৈতিক, দ্বিপাক্ষিক, আঞ্চলিক এবং আন্তর্জাতিক  সম্পর্কে কোন বিরূপ প্রভাব যাতে না পড়ে এবং বাংলাদেশী নাগরিকদের কোন সমস্যা না হয় সে সবদিকে সতর্ক থেকে হাইকমিশন দক্ষতার সাথে কাজ করছে। মালয়েশিয়া  করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধ এবং চিকিৎসায় সফল হওয়ায়  অর্থনীতি পুনরায় চালু করার চেষ্টা চলছে। মার্চ মাসের দ্বিতীয়ার্ধে কঠোর মুভমেন্ট কন্ট্রোল অর্ডার জারি করলে অতি আবশ্যক এবং জীবন রক্ষাকারী পণ্য উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান ছাড়া সব বন্ধ থাকে। সে সময় বাংলাদেশী কর্মীরা এসব প্রতিষ্ঠানে কাজ করেছে করোনা যোদ্ধা হিসেবে। দেশটিতে বসবাসরত বাংলাদেশিদের মধ্যে প্রায় ১৯৪ করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। আক্রন্তদের সেদেশের সরকারি ব্যবস্থাপনায় তাদের চিকিৎসা দেয়া হয়েছে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে। বাংলাদেশ হাইকমিশনের প্রস্তাবের প্রেক্ষিতে মালয়েশিয়া সরকার কোম্পানি পরিবর্তনের সুযোগ দিয়েছে যা পূর্বে ছিল না। বিশেষ করে যে সকল কোম্পানি করোনা পরিস্থিতির কারণে অর্থনৈতিক মন্দা আক্রান্ত বা দেউলিয়া হয়েছে বা কর্মী ছাঁটাই করতে বাধ্য  সে সব কোম্পানিকে তাদের বিদেশি কর্মীদের একই সেক্টরে অন্য কোম্পানিতে ভিসা পরিবর্তন তথা পুনঃনিয়োগ করা হচ্ছে।  এজন্য হাইকমিশন, কর্মী, কোম্পানি এবং মালয়েশিয়া সরকারের সংশ্লিষ্ট দপ্তরের সাথে নিয়মিত যোগাযোগ রক্ষা করে চলেছে, যাতে কাউকে কর্মহীন হয়ে দেশে ফিরে যেতে না হয় এবং  বিষয়টি চলমান আছে।

বাংলাদেশি শ্রমিকদের এ সংক্রান্ত পরামর্শ গ্রহণ করার জন্য  সরাসরি হাইকমিশনের সঙ্গে যোগাযোগ করার অনুরোধ করা হয়েছে। হাইকমিশনার মহ.শহীদুল ইসলাম বলেন, ‘কোম্পানি বা নিয়োগকর্তা পরিবর্তন, ডিটেনশন ক্যাম্পে থাকা কর্মীদের বৈধতা দিয়ে কর্মে নিয়োগ এবং অবৈধদের বৈধতা প্রদানের প্রস্তাব করলে মালয়েশিয়া সরকার  গ্রহণ করে এবং ইতোমধ্যে কোম্পানি বা নিয়োগকর্তা পরিবর্তন চলছে। ডিটেনশন ক্যাম্পে থাকা কর্মীদের এবং অনিয়মিত কর্মীদের  নিয়মিত করার জন্য কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আলোচনা চলছে।  মালয়েশিয়ার মানব সম্পদ মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রীর সাথে এক বৈঠকে শ্রম স্বার্থ সংশ্লিষ্ট বিষয়ে আলোচনায়  বিশেষ করে অনিবন্ধিত অভিবাসীদের জন্য সাধারণ ক্ষমা ঘোষণা করে বৈধতা দিয়ে পুনরায় কর্মে নিয়োগদানের বিষয়ে আলোচনা করা হয়, তাতে মন্ত্রী ইতিবাচক সম্ভাবনার কথা বলেছেন।’ হাইকমিশনার বলেন, মাহামারি সময়ে  যাদের ভিসার মেয়াদ শেষ হয়েছে বিশেষ করে টুরিস্ট এবং সাধারণ কর্মী ব্যতীত অন্যান্য  ভিসাধারীদের কোন জরিমানা ছাড়াই মালয়েশিয়া ত্যাগ করার সুযোগ দিয়েছে। বিদেশী কর্মীদের ভিসা রিনিউ”র বেলায় লেভি পরিশোধের ক্ষেত্রে নিয়োগকর্তা লেভির ২৫%  মওকুফ সুবিধা পাচ্ছেন। হাইকমিশনার  জানান, ইতিমধ্যে বিদেশি কর্মী নিয়োগে শূন্য ব্যয় নীতি র সুবিধা পেতে শুরু করেছে বাংলাদেশী কর্মীরা ইতোমধ্যে শীর্ষস্থানীয় গ্লোভস প্রস্ততকারক কোম্পানি ডব্লিউ আরপি,  নাইট্রিটেকস, টপ গ্লাভস, হার্তালেগা সহ অনেক কোম্পানি বাংলাদেশী কর্মীদের  অভিবাসন ব্যয় ফেরত দিয়েছে। আরো বেশ কিছু কোম্পানি শূন্য অভিবাসন ব্যয় বাস্তবায়ন করবে বলে জানা গেছে।

করোনা কালে মালয়েশিয়ান সরকারের  এস ও পি পরিপালন করে প্রবাসী কর্মীদের পাসপোর্ট ও কনস্যুলার সেবা দিচ্ছে হাই কমিশন। করোনাকালে মুভমেন্ট কন্ট্রোল অর্ডার (এমসিও) জারি করলে কর্মহীন কর্মীদের নিকট খাদ্য সহায়তা পৌঁছে দেবার কারণে মালয়েশিয়া সরকার  হাইকমিশনের প্রশংসা করে। বাংলাদেশি নাগরিকদের সহায়তা প্রদানের জন্যও কৃতজ্ঞতা জানিয়েছে দেশটিতে অবস্থিত বাংলাদেশের হাইকমিশন। হাইকমিশন বলেছে, কোভিড- ১৯ মহামারির বিশ্বব্যাপী চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় মালয়েশিয়ার সরকারের উদ্যোগকে বাংলাদেশ সরকার প্রশংসা করেছে। ‘ মালয়েশিয়া সরকার নিজ দেশের নাগরিক এবং বিদেশি অভিবাসী সবাইকে কোভিড-১৯ পরীক্ষা করার জন্য এগিয়ে আসতে উৎসাহিত করেছে। হাই কমিশন বলছে, মালয়েশিয়ার সংশ্লিষ্ট বিভাগের সঙ্গে অবিচ্ছিন্ন যোগাযোগ, বাংলাদেশি নাগরিকদের কনস্যুলার পরিষেবা দেওয়ার জন্য হাসপাতাল এবং ডিটেনশন কেন্দ্রগুলিতে পরিদর্শন করতে এবং কনস্যুলার সার্ভিস প্রদান করতে দূতাবাসের অনুরোধগুলির প্রতি মালয়েশিয়া সরকার সব সময় ইতিবাচক সাড়া প্রদান করেছে। মালায়ান ম্যানশন, সেলেঙ্গার ম্যানশন এবং প্লাজা সিটি ১-এ বর্ধিত নিয়ন্ত্রন আদেশে ক্ষতিগ্রস্ত বাংলাদেশি নাগরিকদের সহায়তার জন্য হাইকমিশন এবং সংশ্লিষ্ট মালয়েশিয়ার কর্তৃপক্ষের যৌথ সহযোগিতা দু’দেশের মধ্যে বন্ধুত্বপূর্ণ সহযোগিতার এক উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে।

হাইকমিশন সূত্রে জানা গেছে, এই করোনা কালেও বাণিজ্য, শিক্ষা, সংস্কৃতি, বিজ্ঞান এবং প্রযুক্তিসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে দুই ভ্রাতৃত্বপূর্ণ দেশের মধ্যকার সম্পর্ক আরো  গভীর হয়েছে । চলমান কোভিড পরিস্থিতির মধ্যেও বাংলাদেশ হাইকমিশনের অনুরোধের প্রেক্ষিতে গত ১৬ জুন মালয়েশিয়া সরকারের গুরুত্বপূর্ণ সিনিয়র মন্ত্রী,  প্রতিরক্ষা মন্ত্রী দাতুক সেরি ইসমাইল সাবরি বিন ইয়াকুব এর সাথে বাংলাদেশের হাইকমিশনার শহীদুল ইসলামের এক বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে এবং বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে  মালয়েশিয়ান জনগণের জন্য প্রদত্ত স্বাস্থ্য রক্ষা সামগ্রী উপহার তুলে দেন। বৈঠকে দু’দেশের দ্বিপাক্ষিক বিষয়াদি বিশেষ করে প্রতিরক্ষা, শ্রমিক, বাণিজ্য, বাংলাদেশে বিনিয়োগ এবং কোভিড পরিস্থিতিতে উভয় দেশের মধ্যে নবমাত্রায় কাজ করার বিষয়ে আলোচনা হয়েছে এবং অত্যন্ত সফলভাবে কোভিড-১৯ পরিস্থিতি মোকাবিলা করায় মালয়েশিয়া সরকারের প্রশংসা করেন।

এছাড়া মালয়েশিয়ায় বিভিন্ন কারণে অবৈধ হয়ে যাওয়া বাংলাদেশি নাগরিকদের বৈধতা প্রদানের জন্য অনুরোধ করলে জবাবে প্রতিরক্ষামন্ত্রী বাংলাদেশি কর্মীদের দক্ষতা, কর্মনিষ্ঠা ও সততার প্রশংসা করেন এবং বিষয়টি সক্রিয় বিবেচনাধীন রয়েছে বলে জানিয়েছেন। বিগত ৬ বছরে দুই দেশের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক অনন্য উচ্চতায় পৌঁছে গেছে। মালয়েশিয়ার প্রতিরক্ষামন্ত্রী বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বের প্রশংসা করে বলেন, দু’দেশের মধ্যে দ্বিপাক্ষিক ও আন্তর্জাতিক সম্পর্ক ভবিষ্যতে আরো মজবুত হবে। বাংলাদেশে কোভিড-১৯ মোকাবিলায় শেখ হাসিনার প্রসংশা করেন। তিনি বলেন, শেখ হাসিনা বাস্তচ্যুত মিয়ানমারের রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশে আশ্রয় দিয়ে মহানুভবতার পরিচয় দিয়েছেন। তিনি বাংলাদেশী কর্মী, বাংলাদেশ হাইকমিশন এবং বাংলাদেশ সরকারের  ভুয়সী প্রশংসা করেন।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই জাতীয় আরও খবর
© 2018 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। এই ওয়েবসাইটের লেখ, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যাবহার বেআইনি
Theme Customized BY LatestNews