1. monir212@gmail.com : admin :
  2. support@wordpress.org : Support :
  3. merajhgazi@gmail.com : News Desk : Meraj Hossen Gazi
  4. desk@probashbarta.com : News Desk : News Desk
রবিবার, ২৮ নভেম্বর ২০২১, ০২:৫৮ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :

কমিটির মেয়াদ বৃদ্ধি ইস্যুতে আবারও অস্থিরতা বায়রায়

বিশেষ প্রতিবেদক
  • প্রকাশিত : শুক্রবার, ১০ জুলাই, ২০২০
Print Friendly, PDF & Email

 

আবারও অস্থিরতা দেখা দিয়েছে জনশক্তি প্রেরণকারিদের সংগঠন বাংলাদেশ এসোসিয়েশন অব ইন্টারন্যাশনাল রিক্রুটিং এজেন্সিস- বায়রায়। এবার সংগঠনটির আসন্ন নির্বাচনকে ঘিরে এই পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। বায়রার বর্তমান কমিটি ( বেনজীর-নোমান ) মেয়াদ শেষ হচ্ছে   ১৪ সেপ্টেম্বর। নিয়ম অনুসারে মেয়াদ শেষের তিন মাস আগেই নির্বাচন করবে বর্তমান কমিটি। নির্বাচন কমিশনের অধিনে ভোটের মাধ্যমে নতুন নেতৃত্বের কাছে ক্ষমতা হস্তান্তরই বায়রায় গঠনতন্ত্রের বিধান। কিন্তু এবার করোনাভাইরাসের প্রভাবে সেটা হচ্ছে না। গেল মার্চে বানিজ্য মন্ত্রণালয় জানিয়ে দেয়, পরবর্তি ঘোষণার আগ পর্যন্ত ব্যবসায়িক সংগঠন বা এ ধরণের সংগঠনের নির্বাচন বন্ধ থাকবে।

এদিকে, অসমাপ্ত কাজ শেষ করা ও করোনাভাইরাসের প্রভাবে মেয়াদ শেষের দুই মাস আগেই এক বছরের মেয়াদ বাড়ানোর জন্য বানিজ্য মন্ত্রী বরাবর আবেদন করেছেন বায়রার বর্তমান কমিটি। আবেদনে বলা হয়, বর্তমান কমিটির কিছু অসমাপ্ত কাজ রয়েছে। এর মধ্যে বায়রা ট্রেনিং সেন্টার উদ্বোধন, আন্তর্জাতিক বিভিন্ন সংস্থান সাথে উন্নয়নমূলক কাজ ছাড়াও জনশক্তি প্রেরণে ডিজিটালাইজেশন পদ্ধতি চালুর মতো গুরুত্বপূর্ণ কাজ করছেন তারা। এসব সমাপ্তের জন্য আরও এক বছর সময় চান তিনি। গেল ৩১ মে চিঠি দেন বায়রা সভাপতি।

অন্যদিকে এই চিঠির খবর জানার পর ২৭ সদস্যের সংগঠন থেকে পদত্যাগপত্র জমা দেন ১১ জন। এর মধ্য  এক জন সম্মতি দেননি। আর আগে বহিস্কার হওয়া তিন জনও ( যদিও হাইকোর্ট বহিস্কারাদেশ স্থগিত করেছে, আপিল বিভাগে এখন ) পদত্যাগ পত্র জমা দেন। এই তিন জন বাদে অন্যদের পদত্যাগ পত্র গ্রহণ করে বায়রা সচিবালয়।

পদত্যাগের কারণ হিসেবে তারা বলছেন, মেয়াদ বাড়ানোর আবেদনের সাথে তারা একমত নন।  একইসাথে এই বিষয়ে নির্বাহী কমিটিতে কোন আলোচনাও হয়নি। শুধু তাই নয় হাইকোর্ট এবং আপিল বিভাগের ভিন্ন দুটি আদেশ অনুসারেও মেয়াদ বাড়ানোর সুযোগ নেই। তাই তারা এই সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করে পদত্যাগ করেছেন। একই সাথে তারা বলেন, বায়রার বর্তমান কমিটির শীর্ষ নেতৃত্ব সংগঠন ও সাধারণ সদস্যদের স্বার্থবিরোধী অনেক কাজ করেছে।

পদত্যাগ করা বায়রার যুগ্ম-মহাসচিব এডভোকেট সাজ্জাদ হোসেন জানান, বায়রার বর্তমান কমিটি বিভিন্ন সময়ে নির্বাহী কমিটির সাথে আলোচনা না করেই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। সৌদি আরবের ড্রপ বক্সের পক্ষে বায়রার প্যাডে সুপারিশ করেছিলেন। যেটা সাধারণ সদস্যদের আন্দোলনে বাতিল হয়। একইভাবে কমিটির মেয়াদ বাড়ানোর বিষয়েও নির্বাহী কমিটিতে কোন আলোচনা হয়নি।

পদত্যাগ করা রফিক হায়দার ভুঁইয়া জানান, ২০১৬ এবং ২০১৮ সালের উচ্চ আদালতের দুটি আদেশ আছে এ বিষয়ে। যেখানে বলা হয়েছে কমিটির মেয়াদ বাড়ানোর সুযোগ নেই। মেয়াদ বাড়ানো হলে সেটি আদালত অবমাননা হবে বলেও মনে করেন বায়রার পদত্যাগি এই নেতা। তিনি বলেন, সাধারণ সমদস্যরা চান ভোটের মাধ্যমে নির্বাচন।”

আদালতের আদেশ বিষয়ে বায়রা সভাপতি বেনজীর আহমদ প্রবাস বার্তাকে বলেন, ” উচ্চ আদালতের যে আদেশ আছে সেটা ২০১৬ ও ২০১৮ সালের নির্বাচনের সময়ের। সেই নির্বাচন হয়ে গেছে। এখন আর ঐ আদেশের কোন কার্যকারিতা নেই। একটি মহল আদালতের পুরনো আদেশের কথা বলে সাধারণ সদস্যদের বিভ্রান্ত করছে। আমরা আইনি দিক বিবেচনা করেই মেয়াদ বাড়ানোর আবেদন করেছি। যেটা খুবই বাস্তবসম্মত।”

২০১৮ সালেও তখনকার কমিটির ( বেনজীর আহমদ – রুহুল আমিন স্বপন ) মেয়াদ বাড়ানোর জন্য আবেদন করেছিল। সেসময় এর বিরুদ্ধে উচ্চ আদালতে রিট করেছিলেন বায়রার সিনিয়র সদস্য আব্দুল আলিম। তিনি প্রবাস বার্তাকে বলেন, ” উচ্চ আদালতের যেকোন আদেশ উদাহরণ হয়ে থাকে। এক বিষয়ে কোন আদেশ একবার হলে পরবর্তিতে সেটি আনুসরণ করা হয়। ২০১৬ সালের আদেশ অনুসারে ২০১৮ সালেও আদেশ দিয়েছিলেন আদালত। বানিজ্য মন্ত্রণালয় এটি অনুসরণ না করলে আদালত অবমাননা হতে পারে।”

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই জাতীয় আরও খবর
© 2018 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। এই ওয়েবসাইটের লেখ, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যাবহার বেআইনি
Theme Customized BY LatestNews