1. monir212@gmail.com : admin :
  2. support@wordpress.org : Support :
  3. merajhgazi@gmail.com : News Desk : Meraj Hossen Gazi
  4. desk@probashbarta.com : News Desk : News Desk
রবিবার, ২৮ নভেম্বর ২০২১, ০৩:২৯ অপরাহ্ন

সৌদিতে মানবতার অনন্য দৃষ্টান্ত রাখলেন সাংবাদিক নিহন

নিউজ ডেস্ক
  • প্রকাশিত : মঙ্গলবার, ১২ মে, ২০২০
Print Friendly, PDF & Email

 

রিয়াদ প্রতিনিধি: অন্যান্য প্রবাসীর মতো বাংলাদেশি প্রবাসী তসলিমেরও ছিল অনেক স্বপ্ন, ছিল বুক ভরা আশা। ছিল পরিবারকে সুখের রাখার পরিকল্পনা। সব পরিকল্পনা হঠাৎ যেন সৌদি আরবের মরুর ধুলো বালির সাথে মিশে যায় তার। শুধু একটি দেহ পড়ে আছে, যে দেহেতে নেই কোন স্বপ্ন নেই কোন পরিকল্পনা।

তসলিমের এখন কেবল একটিই চাওয়া কোন ভাবে তার দেশে ফিরে যাওয়া। বলছিলাম নওগাঁ জেলার সৌদি আরব প্রবাসী তসলিম উদ্দিনের কথা। যে তসলিম উদ্দিন তিন বছর আগে এসেছিলেন সৌদি আরবে। কোথায় কোন কোম্পানিতে কাজ করতেন কিছুই বলতে পারছেন না তিনি এখন। বর্তমানে তার ইকামার একটি কপি ছাড়া আর কিছুই নেই তার কাছে। শরীরে অনেক জখমের চিহ্ন নিয়ে তিন মাস ধরে সৌদি আরবের রিয়াদে খান্সা লিলা নামক স্থানে ফুটপাতে পড়ে ছিলেন এই তসলিম। সেই ফুটপাত ধরে অনেকের যাওয়া আসা থাকলেও কেউ তাকে থাকার যায়গাটা পর্যন্ত করে দিতে পারেনি! তবে অনেকে তার সমস্যা কথা জিজ্ঞেস করলেও সঠিক ভাবে কিছুই বলতে পারেননা তসলিম। এক পর্যায়ে সোশ্যাল এক্টিভিস্ট আব্দুল হালিম নিহনের কাছে তসলিমের ফুটপাতে পড়ে থাকার একটি ছবি দিয়ে অন্য এক বাংলাদেশী এসএমএস করেন।

তসলিমের খবর পেয়ে পরদিন আব্দুল হালিম নিহন ছুটে যান সেই স্থানে। গিয়ে দেখেন অসুস্থ শরীর নিয়ে বসে আছেন তাসলিম। আব্দুল হালিম তার কাছে গিয়ে বিস্তারিত জানতে চান, বিস্তারিত বলতে না পারলেও তসলিম তার শরীরের ক্ষত স্থান দেখিয়ে কান্না করতে করতে বললেন তিন মাস আগে মেডিক্যাল থেকে তাকে এখানে নামিয়ে দেয়া হয়। মেডিক্যালে কেন গেছেন কি হয়েছিল তার সেগুলা কিছুই মনে নেই তসলিমের। তবে তার দেশের বাড়ি নওগাঁ জেলায় সেটা বলতে পারছেন এবং কেঁদে কেঁদে দেশে ফিরতে চান সেটা বার বার জানান দিচ্ছেন। অন্যদিকে ধারণা করা হচ্ছে তসলিম মানুষিক রোগে ভুগছেন। এক পর্যায়ে তসলিমকে সান্ত্বনা দিয়ে আব্দুল হালিম নিহন তাকে সাথে করে নিয়ে আসেন।

একদিন তার সাথে রেখে তাকে একটি থাকার রুম ঠিক করে তার দেখা শোনার দায়িত্ব তিনি নেন, দেশে না যাওয়া পর্যন্ত। আব্দুল হালিম নিহন পরবর্তী বিষয়টি দূতাবাসকে অবগত করলে দূতাবাস তসলিমকে দেশে পাঠানোর ব্যবস্থা করবেন বলে আশ্বাস দেন। অন্যদিকে তসলিমের ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়াতে আসলে সাথে সাথে সেটি ভাইরাল হয়ে যায়। এবং অনেক প্রবাসী এগিয়ে আসার আশ্বাস দেন তসলিমের পাশে। তাসলিমের জন্য এমন মানবিক কাজ করায় গোটা সৌদি আরবে এখন প্রশংসায় ভাসছেন নিহন।

 

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই জাতীয় আরও খবর
© 2018 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। এই ওয়েবসাইটের লেখ, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যাবহার বেআইনি
Theme Customized BY LatestNews