1. monir212@gmail.com : admin :
  2. support@wordpress.org : Support :
  3. merajhgazi@gmail.com : News Desk : Meraj Hossen Gazi
  4. desk@probashbarta.com : News Desk : News Desk
রবিবার, ২৮ নভেম্বর ২০২১, ০৩:১৩ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :

কর্মী পাঠাতে দালালদের নিবন্ধন জরুরি, রামরু’র সংবাদ সম্মেলন

নিউজ ডেস্ক
  • প্রকাশিত : রবিবার, ২৯ ডিসেম্বর, ২০১৯
Print Friendly, PDF & Email

 

স্টাফ রিপোর্টার: বিদেশে কর্মী প্রেরণের ক্ষেত্রে প্রত্যেক দালালের নিবন্ধন করা জরুরি বলে মন্তব্য করেছেন  রিফিউজি এন্ড মাইগ্রেটরী মুভমেন্ট রিসার্স ইউনিট (রামরু) – এর প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান ড. তাসনিম সিদ্দিকী।

রবিবার (২৯ ডিসেম্বর) জাতীয় প্রেসক্লাবে ‘বাংলাদেশ থেকে শ্রম অভিবাসনের গতি প্রকৃতি-২০১৯ সাফল্য ও চ্যালেঞ্জ’ শীর্ষক এক সংবাদ সম্মেলনে এ মন্তব্য করেন তিনি।

সংবাদ সম্মেলনে ড. তাসনিম সিদ্দিকী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ৪ সেপ্টেম্বর প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়কে আন্তর্জাতিক বাজারে কর্মী নিয়োগে জড়িত দালালদেরকে আইডি কার্ড প্রদানের নির্দেশ দেন। যার প্রেক্ষিতে রামরু অভিবাসী শ্রমিক নিয়োগে দালালদের নিবন্ধনকরণে একটি মডেল তৈরী করেছে।

তিনি আরো বলেন, দীর্ঘদিন ধরে অভিবাসনের সকল সমস্যার প্রধান কারণ হিসেবে দালালদের ইঙ্গিত করা হচ্ছে অথচ এই দালালরাই অভিবাসীদের ১৭ ধরণের সেবা প্রদান করে থাকে। তাদের এ সেবা ছাড়া তৃণমূল থেকে অভিবাসী কর্মী প্রেরণ অসম্ভব বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

তিনি বলেন, বৈদেশিক কর্মসংস্থান ও অভিবাসী আইন ২০১৩-‌এ এদের কাজের কোনো স্বীকৃতি নেই। যার ফলে তারা অনানুষ্ঠানিকভাবে কর্মী নিয়োগে জড়িত থাকে। এর ফলস্রুতিতে কিছু কিছু দলাল ও রিক্রটিং এজেন্সি অবিবাসীদের প্রতারিত করার সুযোগ পেয়ে যায়। তাই এমতাবস্থায় এসকল দালালদের নিবন্ধনের আওতায় নিয়ে আসা এখন সময়ের দাবী।

এসময় তিনি মধ্যস্বত্ত্বভোগীদের নিবন্ধনের আওতায় নিয়ে আসার পদ্ধতি সম্পর্কে বলেন- ডেমো, রিক্রুটিং এজেন্সি ও বায়রার মাধ্যমে রেজিস্ট্রশন করাই এ সমস্যা সমাধানের সম্ভাব্য পথ। তবে এক্ষেত্রে বায়রার মাধ্যমে রেজিস্ট্রশন করা সবচেয়ে কার্যকরী হবে বলে মন্তব্য করেছেন তিনি।

সংবাদ সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে ড.শাহদিন মালিক বলেন- দেশের প্রচলিত শিক্ষা ব্যবস্থায় কারিগরি শিক্ষা পর্যাপ্ত না থাকায় বিদেশে দক্ষ কর্মী প্রেরণ করা যাচ্ছেনা। দক্ষ কর্মী প্রেরণ করতে না পারায় বিদেশে অবস্থানরত কর্মীর তূলনায় দেশে পর্যাপ্ত পরিমান র‍েমিট্যান্স আসছে না। এসময় তিনি আরো বলেন, প্রতি বছর যে পরিমান রেমিট্যান্স দেশে আসছে তার এক তৃতীয়াংশই নিয়ে যাচ্ছে পার্শবর্তী দেশের স্বল্প সংখক অভিবাসীরা। আর এটা সম্ভব হচ্ছে শুধুমাত্র তাদের দক্ষ কর্মীর কারণে। তাই দক্ষ কর্মী তৈরীর কোনো বিকল্প নেই।

তিনি আরো বলেন, বহির্বিশ্বে অভিবাসন সংশ্লিষ্ট আইনি প্রক্রিয়ায় বাংলাদেশের অবস্থান খুবেই নাজুক। আর এর প্রধান করণ হলো আন্তর্জাতিক অঙ্গনে বাংলাদেশের কূটনৈতিক বিভাগে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের আন্তর্জাতিক অভিবাসন আইন সম্পর্কে পর্যাপ্ত জ্ঞান না থাকা। যার ফলে আন্তর্জাতিক অভিবাসন অঙ্গনে আইনি দাবি দাওয়া আদায়ে বাংলাদেশ তার কাঙ্খিত লক্ষ অর্জন করতে পরছে না। তাই সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের এবিষয়ে পর্যাপ্ত জ্ঞান রাখা জরুরি।

সংবাদে সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন-  রামরুর প্রগ্রাম পরিচালক মেরিনা সুলতানা, সিনিয়র আইটি অফিসার মো: পারভেজ আলম, রামরুর প্রগ্রাম অফিসার রাবেয়া নাসরিনসহ অন্নান্য অতিথিবৃন্দ।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই জাতীয় আরও খবর
© 2018 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। এই ওয়েবসাইটের লেখ, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যাবহার বেআইনি
Theme Customized BY LatestNews