1. monir212@gmail.com : admin :
  2. user@probashbarta.com : helal Khan Probashbarta : Helal Khan
  3. merajhgazi@gmail.com : News Desk : Meraj Hossen Gazi
  4. desk@probashbarta.com : News Desk : News Desk
বুধবার, ১৯ মে ২০২১, ০৬:২৯ পূর্বাহ্ন

প্রবাসীদের রেমিট্যান্সে বিশেষ ইনসেন্টিভ আসতে পারে বাজেটে

নিউজ ডেস্ক
  • প্রকাশিত : মঙ্গলবার, ২৮ মে, ২০১৯
Print Friendly, PDF & Email

 

বিশেষ প্রতিনিধি, প্রবাস বার্তা : দীর্ঘ দিন থেকে দাবি করা হচ্ছিল প্রবাসীদের পাঠানো রেমিট্যান্সে কর মওকুফ বা বিশেষ কোন সুবিধা দেয়ার। এবারের জাতীয় বাজেটে ( ২০১৯-২০২০) সেই সুবিধা পেতে পারেন প্রবাসীরা।

জানা গেছে, প্রবাসীরা ব্যাংকিং চ্যানেলে বৈধভাবে যেই টাকা দেশে পাঠান তার একটা ফি দিতে হয় । সেই ফি থেকে একটা অংশ তাকে ফেরত দেয়া অথবা ফি কমানোর বিষয়ে সরকারের নীতি নির্ধারণী পর্যায়ে আলোচনা হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে সকলেই ইতিবাচক আছেন বলে জানা গেছে। তবে এই সুবিধা দিতে গেলে কতো টাকার প্রয়োজন হতে পারে এবং বিদেশ থেকে টাকা পাঠানো সকলেই সেই সুযোগ পাবেন কি না তা বিবেচনা করা হচ্ছে।

প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্হান মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, এ বিষয়ে একটি কমিটি আগেই গঠন করা হয়েছিল। প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয় থেকে একজন যুগ্ম সচিবকে দায়িত্ব দেয়া হয়। কমিটি যাচাই বাছাই করে একটা প্রস্তাবনা অর্থ মন্ত্রণালয় এবং বাংলাদেশ ব্যাংককে পাঠিয়েছে। বিষয়টি এখন শেষ মুহুর্তের বিবেচনায় রয়েছে বলে জানা গেছে।

প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রনালয়ের একজন যুগ্ম সচিব প্রবাস বার্তা-কে বলেন, তাদের প্রস্তাবনা পাঠানো হয়েছে। তবে কতোটুকু ইনসেন্টিভ বা কর মওকুফ দেয়া হবে তা নির্ভর করছে অর্থ মন্ত্রণালয়ের ওপর।  যেহেতু অর্থনৈতিক বিষয় জড়িত, তাই চুড়ান্ত হওয়ার আগে নিশ্চিত করে বলা যাবে না।

এই কর্মকর্তা বলেন, প্রধানমন্ত্রী বিষয়টি নিয়ে ইতিবাচক মনোভাব দেখিয়েছেন বলে তারা জেনেছেন। এখন অর্থ বিভাগ চুড়ান্ত করলেই বিষয়টি জাতীয় বাজেটে অন্তর্ভুক্ত হতে পারে।

২০১৭-১৮ অর্থবছরে এক হাজার ৪৯৮ কোটি ১৭ লাখ (১৪.৯৮ বিলিয়ন) ডলারের রেমিট্যান্স পাঠিয়েছিলেন বিশ্বের বিভিন্ন দেশে থাকা প্রবাসীরা। ২০১৮-২০১৯ অর্থবছরের প্রথম ১০ মাসে (জুলাই-এপ্রিল) এক হাজার ৩৩০ কোটি ৩০ লাখ ডলার (১৩.৩০ বিলিয়ন) রেমিট্যান্স পাঠিয়েছেন প্রবাসীরা।

মাথার ঘাম পায়ে ফেলে তারা দেশে টাকা পাঠালেও এর জন্য বিশেষ কোন সুবিধা দেয়া হয় না। এতে প্রবাসীদের আক্ষেপ রয়েছে শুরু থেকেই।

শুধু তাই নয়। রেমিটেন্সে কোন ইসসেন্টিভ না থাকায় এবং পাঠানোর ক্ষেত্রে ফি বেশির কারণে অনেকেই বিকল্প মাধ্যমে দেশে টাকা পাঠান। হুন্ডি এই ক্ষেত্রে বেশ জনপ্রিয়। সহজে এবং কম খরচে দেশে টাকা পাঠানো যায় বলে এই অবৈধ মাধ্যম আরো জনপ্রিয় হচ্ছে দিন দিন।

এবিষয়ে কথা বলতে পাওয়া যায়নি প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্হান মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বশীল কাউকেই। প্রতিমন্ত্রী ইমরান আহমেদ প্রধানমন্ত্রীর সাথে জাপান সফরে, সচিব রৌনক জাহান এবং অতিরিক্ত সচিব মুনিরুছ সালেহীন গেছেন রাশিয়া, মালয়েশিয়া গেছেন আরো দুই কর্মকর্তা।

হাসান আহমেদ চৌধুরী কিরণ

শ্রম ও অভিবাসন বিশ্লেষক হাসান আহমেদ চৌধুরী কিরণ প্রবাস বার্তা-কে বলেন, প্রবাসীরা দেশের অর্থনীতিতে অনেক বেশি অবদান রাখলেও, তাদের জন্য বিশেষ কোন সুবিধা নেই। সরকার সকল ক্ষেত্রে নানা সুবিধা দিচ্ছে কিন্তু প্রবাসীদের জন্যে তেমন কিছুই নেই। উল্টো নানা হয়রানি ও ভোগান্তির অভিযোগ তাদের। এমন বাস্তবতায় বাজেটে প্রবাসীদের জন্য বিশেষ বরাদ্দ বা ইনসেন্টিভ থাকা খুবই সময়ের দাবি। সরকার যদি এই কাজটি করে তাহলে প্রবাসীরা একটু হলেও মর্যাদাবোধ করবেন- বলছিলেন হাসান আহমেদ চৌধুরী কিরণ।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই জাতীয় আরও খবর
© 2018 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। এই ওয়েবসাইটের লেখ, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যাবহার বেআইনি
Theme Customized BY LatestNews