1. monir212@gmail.com : admin :
  2. support@wordpress.org : Support :
  3. merajhgazi@gmail.com : News Desk : Meraj Hossen Gazi
  4. desk@probashbarta.com : News Desk : News Desk
মঙ্গলবার, ১৮ জানুয়ারী ২০২২, ০৪:০৮ পূর্বাহ্ন

পাসপোর্ট নিয়ে দূতাবাসের ডিজিটাল সেবার মারপ্যাঁচে অসহায় প্রবাসীরা

আহমাদুল কবির, মালয়েশিয়া :
  • প্রকাশিত : রবিবার, ২২ আগস্ট, ২০২১
Print Friendly, PDF & Email

 

মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশ দূতাবাসের পাসপোর্টের ডিজিটাল সেবার মারপ্যাঁচে অসহায় প্রবাসীরা। ফলে বৈধতা হারাতে পারেন অনেকে। পাসপোর্টের কারণে মালয়েশিয়া সরকারের দেয়া রিক্যালিব্রেশন কর্মসূচিতেও অংশ নিতে পারছেন না শত শত বাংলাদেশি।

পাসপোর্ট পাওয়া আর সোনার হরিণ পাওয়া অনেকটা রূপকথার গল্পকেও হার মানিয়েছে দূতাবাসের ডিজিটাল পাসপোর্ট সেবায়। গত বছরের মার্চ থেকে মালয়েশিয়া সরকার বিভিন্ন মেয়াদে মহামারি উত্তরণে চলছে বিধিনিষেধ। আর এ বিধি নিষেধের কারণে লোক সমাগমের উপরও করা হয় কঠোর আইন।

এমন পরিস্থিতে প্রবাসী বাংলাদেশিদের কথা চিন্তা করে দূতাবাসে সশরীরে এসে পাসপোর্ট রিনিউ না করতে এবং একই সঙ্গে পোস্ট অফিসের মাধ্যমে পাসপোর্ট জমা দিতে জারি করা হয় নোটিশ। সে সময় নোটিশে বলা হয় রি-ইস্যু ফরম জমা দেয়ার সময় অবশ্যই ব্যক্তিগত হোয়্যাটসঅ্যাপ নম্বর দিতে। যাতে পাসপোর্ট জমা শেষে নিজ নিজ মোবাইলে মেসেজ দেয়া হবে।

পোস্ট অফিসের মাধ্যমে পাসপোর্ট জমা দেওয়া কার্যক্রম শুরু হলেও একটি অনিশ্চিত ভোগান্তিতে পড়েন বাংলাদেশিরা। ১ থেকে ৩ মাস বা তার বেশি সময় চলে গেলেও ব্যক্তিগত মোবাইলে বার্তা তো দূরের কথা অনলাইনে তার নামও পাওয়া যায়নি এমনও অভিযোগ রয়েছে।

এদিকে মালয়েশিয়ায় ক্রমেই কোভিড আক্রান্তের সংখ্যা বাড়তে থাকায় দূতাবাসে এসে পাসপোর্ট সংগ্রহ করা খুবই কঠিন হয়ে পড়ে এবং দূতাবাসেও বাড়তে থাকে কোভিড আক্রান্তের সংখ্যা। সব বিষয় বিবেচনা করে প্রাথমিক অবস্থায় মোবাইলকলের মাধ্যমে পরবর্তীতে অনলাইনের মাধ্যমে অ্যাপয়েনমেন্ট নেয়ার ব্যবস্থা করা হয়।

এক্ষেত্রে অধিকাংশ প্রবাসীরাই অনলাইন সেবা না বোঝায় পাসপোর্ট দূতাবাসে আসছে কি না বা কিভাবে তা আবেদন করতে হয় এমন জটিলতার মাঝে পড়ে হঠাৎ করে বন্ধ করে দেয়া হয় সরাসরি দূতাবাসে এসে পাসপোর্ট সংগ্রহ করা। চালু করা হয় পোস্ট অফিসের মাধ্যমে পাসপোর্ট বিতরণ।

অনলাইনের মাধ্যমে সঠিক প্রক্রিয়ায় আবেদন সম্পূর্ণ শেষে পাওয়া যায় কাঙ্ক্ষিত সোনার হরিণ নামক পাসপোর্ট। আর এই অনলাইন প্রক্রিয়াতে রয়েছে বেশ কিছু ধাপ যা সাধারণ প্রবাসীদের পূরণে পড়ছে ঝামেলায়। দূতাবাসে পাসপোর্ট এসে মাসের পর মাস পড়ে থাকলেও অনলাইনে নিজের পাসপোর্ট ডেলিভারি নম্বর না পাওয়ায় সময় মতো পাসপোর্ট পাচ্ছেন না অধিকাংশ বাংলাদেশিরা।

দূতাবাসের কড়া সিকিউরিটি নিরাপত্তায় ভেতরে প্রবেশের সুযোগ হলেও কাউন্টারে থাকা কর্মকর্তাদের আচরণ রহস্যজনক বলে অনেকে এ প্রতিবেদককে জানান। নিজেদের সমস্যার সমাধান না পেয়ে নিরাশ হয়ে ফিরছেন অনেকেই। কেউ বা বাধ্য হচ্ছেন দালালের দারস্থ হতে। আবার কেউ বা অভিযোগ করছেন টাকার বিনিময়ে দূতাবাসে না গিয়েও মিলছে পাসপোর্টসহ যাবতীয় সেবা।

এমন পরিস্থিতে মালয়েশিয়ায় থাকা বাংলাদেশিরা মনে করেন স্বল্প ও অদক্ষ লোক দিয়ে এমন কাজ করালে এমনটা হওয়া স্বাভাবিক। তাই প্রবাসীদের কথা চিন্তা করে দূতাবাসের উচিত অতিরিক্ত দক্ষ জনবল নিয়োগের মাধ্যমে খুব দ্রুত প্রবাসীদের সমস্যা সমাধান করা।

প্রবাসীদের অভিযোগের ভিত্তিতে পাসপোর্ট বিভাগের দায়িত্বে থাকা দূতালয় প্রধান রুহুল আমিনের সঙ্গে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তাকে পাওয়া যায়নি।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই জাতীয় আরও খবর
© 2018 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। এই ওয়েবসাইটের লেখ, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যাবহার বেআইনি
Theme Customized BY LatestNews