1. monir212@gmail.com : admin :
  2. support@wordpress.org : Support :
  3. merajhgazi@gmail.com : News Desk : Meraj Hossen Gazi
  4. desk@probashbarta.com : News Desk : News Desk
রবিবার, ২৮ নভেম্বর ২০২১, ০৩:৪৩ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :

বিদেশগামী কর্মীদের পদে পদে হয়রানি, এ দায় কার ?

সম্রাট হোসেন, ঢাকা :
  • প্রকাশিত : রবিবার, ১৮ এপ্রিল, ২০২১
Print Friendly, PDF & Email

 

শনিবার সকাল থেকেই রাজধানীর সোনারগাঁও হোটেলের সামনে সৌদি আরবগামী প্রবাসীদের ভিড়। দেশে চলমান সর্বাত্মক লকডাউনের কবলে পড়েছে তাদের সৌদি আরব যাত্রা। এই প্রবাসীরা ফ্লাইটের দাবিতে প্রথমে হোটেলের বাইরে বিক্ষোভ শুরু করেন। দেশে ছুটিতে থাকা প্রবাসীরা বলছেন, লকডাউনের কারনে তাদের ফ্লাইটের সময়সূচী নিয়ে ধোঁয়াশা দেখা দিয়েছে।

তাদের সবার ১৪ থেকে ২০ এপ্রিল সৌদি এয়ারলাইন্সের ফ্লাইটের টিকেট করা ছিলো। কিন্তু আন্তর্জাতিক ফ্লাইট চলাচল বন্ধের তাদের ফ্লাইটের সময় সম্পর্কে কিছুই জানায়নি এয়ারলাইন্স কর্তৃপক্ষ। তাই তাঁরা বাধ্য হয়ে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে ছুটে এসেছেন। এক পর্যায়ে দুপুরের দিকে তাঁরা সোনারগাঁও হোটেলে সৌদি এয়ারলাইন্সের সেলস ও টিকেট বুকিং শাখার সামনে জড়ো হতে থাকেন। এরইমধ্যে তাঁরা ফ্লাইটের সময় জানতে চেয়ে দফায় দফায় বিক্ষোভ করেন। একপর্যায়ে সৌদি এয়ারলাইন্সের টিকেট ও বুকিং শাখার দায়িত্বরত কর্মকর্তারা আশ্বস্ত করে তাদের নিবারণ করার চেষ্টা করেন।

 

নীলফামারী থেকে আসা রওশনারা নামে সৌদি আরবগামী এক নারী কর্মী বলেন, ১৭ এপ্রিল আমার সৌদি এয়ারলাইন্সের টিকেট করা ছিলো, কিন্তু লকডাউনের জন্য এয়ারলাইন্স থেকে কিছুই জানায়নি আমাকে। তাই আমি বাধ্য হয়ে ১৬ হাজার টাকা দিয়ে গাড়ি ভাড়া করে এখানে এসেছি। তবে টিকেট রি-ইস্যু হলে ২১ এপ্রিল হয়তো বিমানে উঠতে পারবো। কিন্তু এই চার দিন কোথায় থাকবো আমার ঢাকায় কোন আত্মীয় স্বজন নেই। আর হাতেও বাড়ি ফিরে যাওয়ার মতো টাকা নেই। তাই এখন কি করবো বুঝে উঠতে পারছিনা। সেই সাথে আবার করোনা ভাইরাস পরীক্ষার রিপোর্ট নিতে হবে।

নোয়াখালির চাটখিল থেকে ফ্লাইটের কোন খবর না পেয়ে এসেছেন ফরহাদ নামে এক প্রবাসী তিনি বলছেন, আমি দুই মাসের ছুটিতে দেশে এসেছিলাম কিন্তু এখন লকডাউনের জন্য বিপদে পড়ে গেছি, অন্যদিকে আমার ভিসার মেয়াদ প্রায় শেষের দিকে। আমার ফ্লাইটের তারিখ ছিলো ১৮ এপ্রিল কিন্তু এখন কিছুই জানতে পারছি না। যদি সময় মতো যেতে না পারি তাহলে চাকরি হারাতে হবে। তাঁর পাশে থাকা আরেক প্রাবাসী সঙ্গে থাকা খাম থেকে বের করে বিএমইটির স্মার্ট কার্ড দেখিয়ে বলেন, সরকার বলছে যাদের স্মার্ট কার্ড আছে তারা আগে যাওয়ার সুযোগ পাবে। কিন্তু আমার এটা থাকার পরেও যেন ভোগান্তি শেষ নেই।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া থেকে আসা রফিকুল ইসলাম জানান, তিনি ছয় বছর ধরে জেদ্দায় একটি কোম্পানিতে কর্মরত, তিন মাস আগে দেশে ছুটিতে এসেছিলেন। ১৯ এপ্রিল তাঁর সৌদি এয়ারলাইন্সের টিকেট করা ছিলো। অন্যদিকে ২৫ এপ্রিল তাঁর ভিসার মেয়াদ শেষ হবে। লকডাউনের কারণে মোটরসাইকেল, সিএনজি-ট্রাকে করে অনেক কষ্টে এখানে এসেছেন। এই প্রবাসী বলছেন, যদি সময় মতো সৌদি আরবে যেতে না পারেন তাহলে তাঁর পথে বসা ছাড়া কোন উপায় থাকবে না।

সৌদি এয়ারলাইন্সের কাউন্টারের সামনে থাকা একাধিক সৌদি আরবগামী প্রবাসীর সাথে কথা হলে তাঁরা সবাই জানান, সময় মতো যদি তাঁরা সৌদি আরবের ফ্লাইট ধরতে না পারেন তাহলে তাদের নিঃস্ব হওয়া ছাড়া উপায় থাকবে না।

এদিকে সৌদি আরবগামী প্রবাসী কর্মী যাদের কাছে ১৪ থেকে ২১ এপ্রিল পর্যন্ত সৌদি এয়ারলাইন্সের টিকেট রয়েছে, তাদের সকলকে টিকেট রি-ইস্যু করতে হবে। শনিবার (১৭ এপ্রিল) দুপুরে সৌদি এয়ারলাইন্সের প্রধান শাখার ম্যানেজার জাহিদুল আমিন এ কথা জানান।

তিনি সৌদি এয়ারলাইন্সের টিকেট করা প্রবাসীদের উদ্দেশ্যে বলেন, ‘১৪ থেকে ১৮ এপ্রিল পর্যন্ত যারা যারা ফ্লাইট মিস করেছেন বা যেতে পারেননি তাদের প্রত্যেককে সৌদি আরবে পাঠানোর ব্যবস্থা করা হবে।

তিনি আরও জানান, রবিবার থেকে ১৪ তারিখের যাত্রীদের ফ্লাইট শুরু হবে। এরপর পর্যায়ক্রমে ১৫ এপ্রিলের টিকিট সোমবার (১৯ এপ্রিল), ১৬ এপ্রিলের টিকিট মঙ্গলবার (২০ এপ্রিল), ১৭ এপ্রিলের টিকিট বুধবার (২১ এপ্রিল) এবং ১৮ এপ্রিলের টিকিট বৃহস্পতিবার (২২ এপ্রিল) দেওয়া হবে। এছাড়া ১৯ থেকে ২২ এপ্রিল পর্যন্ত ফ্লাইটের সৌদি যাত্রীদের পরবর্তীতে তারিখ জানানো হবে।’

 

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই জাতীয় আরও খবর
© 2018 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। এই ওয়েবসাইটের লেখ, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যাবহার বেআইনি
Theme Customized BY LatestNews