1. monir212@gmail.com : admin :
  2. user@probashbarta.com : helal Khan Probashbarta : Helal Khan
  3. merajhgazi@gmail.com : News Desk : Meraj Hossen Gazi
  4. desk@probashbarta.com : News Desk : News Desk
মঙ্গলবার, ২০ এপ্রিল ২০২১, ০৪:৪৫ অপরাহ্ন

নতুন আতঙ্কে বিদেশগামী কর্মী ও রিক্রুটিং এজেন্সির মালিকরা

সম্রাট হোসেন, ঢাকা :
  • প্রকাশিত : মঙ্গলবার, ৬ এপ্রিল, ২০২১
মন্ত্রণালয়ের সামনে বিদেশগামী কর্মীরা। (ফাইল ছবি)
Print Friendly, PDF & Email

 

বাংলাদেশে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ বৃদ্ধি পাওয়া এবং নতুন করে এক সপ্তাহের লকডাউনে আতঙ্ক সৃষ্টি হয়েছে বিদেশগামী কর্মী ও রিক্রুটিং এজেন্সির মালিকদের মধ্যে। এরই মধ্যে কয়েকটি দেশের সাথে ফ্লাইট বন্ধ হওয়ায় আতঙ্ক আরও বেড়েছে। এজেন্সির মালিকরা বলছেন গত বছরের লকডাউনের ধকল এখনো কাটিয়ে উঠতে পারেননি। সবেমাত্র নতুন করে দু’একটি দেশে কর্মী পাঠানোর প্রক্রিয়া শুরু করেছিলেন তারা। এরমধ্যে ফ্লাইট বন্ধ হওয়ায় ঝুঁকিতে পড়েছেন কর্মী ও রিক্রুটিং এজেন্সির মালিকরা।

এ প্রসঙ্গে বায়রা’র সাবকে সংস্কৃতি বিষয়ক সম্পাদক ও রিক্রুটিং এজেন্সি মেসার্স আদিব এয়ার ট্রাভেলস এন্ড ট্যুরস এর স্বত্বাধিকারি কে এম মোবারক উল্লাহ শিমুল প্রবাস বার্তাকে বলেন, “২০২০ এ করোনা ভাইরাস শুরুর পর যে ক্ষতি আমাদের হয়েছে, সেই ধকল এখনো কাটিয়ে উঠতে পারিনি। এবার নতুন করে ঝুঁকিতে পড়লে  রিক্রুটিং এজেন্সি মালিকদের পথে বসার উপক্রম হবে।”

মোবারক উল্লাহ শিমুল আরও বলেন, “এখন আমরা সীমিত আকারে সংযুক্ত আরব আমিরাত ও সৌদি আরবে কর্মী পাঠাচ্ছি। আগামী দুই সপ্তাহের মধ্যে আমার শতাধিক কর্মীর ফ্লাইটের জন্য টিকেট কেনা রয়েছে। কর্মীদের ভিসা, ম্যানপাওয়ার ক্লিয়ারেন্সসহ যাবতীয় কাজ শেষ। এখন কোন কারণে যদি আমিরাতের সাথে ফ্লাইট বন্ধ হয়, তাহলে মারাত্মক ক্ষতি হবে। আমার মতো অনেক ব্যবসায়ীর একই পরিনতি হবে। সেই সাথে কর্মীরাও রয়েছেন অনিশ্চয়তায়।”

বায়রা’র সাবকে অর্থ বিষয়ক সম্পাদক ও হিউম্যান রিসোর্স ডেভলপমেন্ট সেন্টারের ( রিক্রুটিং এজেন্সি) স্বত্বাধিকারি ফখরুল ইসলাম প্রবাস বার্তাকে বলেন, “নতুন করে লকডাউন ও ফ্লাইট বন্ধের কারণে আমাদের মারত্মক ক্ষতির আশঙ্কা রয়েছে। নতুন করে কিছু দেশে কর্মী পাঠানো শুরু হলেও ফ্লাইট বন্ধের কারণে ঝুঁকিতে রয়েছি আমরা। অনেক দিন পর দুবাইতে কিছু কর্মী পাঠানোর কাজ করছি, এখন যদি আমিরাতের ফ্লাইট বন্ধের ঘোষণা আসে তাহলে অপূরণীয় ক্ষতি হবে।”

প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের সামনে বিদেশগামী কয়েকজন কর্মীর সাথে কথা হয় এই প্রতিবেদকের, তারাও একই আশঙ্কা করেন। অনেকেই করোনা শুরুর আগে একবার ভিসা করেও ফ্লাইট বন্ধ হওয়ায় সেসময় যেতে পারেননি। আবার নতুন করে তারা ভিসা করেছেন। এজন্য অর্থনৈতিক ক্ষতিও হয়েছে তাদের। এবারও যদি তেমন কিছু হয়, তাহলে এই কর্মীরা ঋণগ্রস্ত হয়ে পড়বেন বলে আশঙ্কা অনেকের।

সম্প্রতি যুক্তরাজ্য বাদে ইউরোপের অন্য দেশগুলো এবং আরও ১২টি দেশ থেকে বাংলাদেশে যাত্রী প্রবেশের ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ (বেবিচক)। ইউরোপের বাইরে ১২টি দেশ হলো- আর্জেন্টিনা, বাহারাইন, ব্রাজিল, চিলি, জর্ডান, কুয়েত, লেবানন, পেরু, কাতার, সাউথ আফ্রিকা, তুরস্ক ও উরুগুয়ে। ৩ এপ্রিল রাত ১২টার পর থেকে থেকে ১৮ এপ্রিল পর্যন্ত এ নিষেধাজ্ঞা কার্যকর থাকবে। এরপর যুক্তরাজ্য ঘোষণা দেয়, ৯ এপ্রিল থেকে বাংলাদেশসহ চার দেশ থেকে যাত্রী প্রবেশ করতে পারবে না দেশটিতে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই জাতীয় আরও খবর
© 2018 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। এই ওয়েবসাইটের লেখ, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যাবহার বেআইনি
Theme Customized BY LatestNews