1. monir212@gmail.com : admin :
  2. support@wordpress.org : Support :
  3. merajhgazi@gmail.com : News Desk : Meraj Hossen Gazi
  4. desk@probashbarta.com : News Desk : News Desk
সোমবার, ২৪ জানুয়ারী ২০২২, ০৭:১৮ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
ইতালিতে সিজনাল ও স্পন্সর ভিসা: বাংলাদেশিদের যা জানা প্রয়োজন মার্কিন ফেডারেল কোর্টের বিচারপতি হলেন বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত নুসরাত বাংলাদেশ থেকে প্রক্রিয়াজাত খাবার-পোশাক-আসবাব নিতে আগ্রহী মেক্সিকো মালদ্বীপে লাফিয়ে বাড়ছে করোনার সংক্রমণ গোলাপগঞ্জে ইউরোপ-বাংলাদেশ প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদককে সংবর্ধনা আওয়ামী লীগের ধর্মবিষয়ক কেন্দ্রীয় উপকমিটির সদস্য জাহাঙ্গীর ফরাজী মালয়েশিয়া শ্রমবাজার: রিক্রুটিং এজেন্সি ইস্যুতে নতুন করে চিঠি চালাচালি জেদ্দায় কৃতী শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা ঢাকা-শারজাহ রুটে বিমানের ফ্লাইট ২৫ জানুয়ারি থেকে মালদ্বীপে ফের বাড়ছে করোনার সংক্রমণ

মালয়েশিয়া শ্রমবাজার: ব্যবসায়ীদের একাংশ ও মন্ত্রীর পাল্টাপাল্টি বক্তব্য

স্টাফ রিপোর্টার
  • প্রকাশিত : সোমবার, ১৫ ফেব্রুয়ারী, ২০২১
Print Friendly, PDF & Email

 

মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশের শ্রমবাজার নিয়ে দুই সরকারের মন্ত্রী পর্যায়ের যৌথ ওয়ার্কিং গ্রুপের বৈঠক অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ১৬ ফেব্রুয়ারি। তবে এর আগেই দেশের অন্যতম এই শ্রমবাজারে কর্মী প্রেরণের ক্ষেত্রে রিক্রুটিং এজেন্সির মালিকদের একাংশ পদ্ধতিগত বিষয় নিয়ে প্রশ্ন তুলে কিছু দাবি তুলে ধরেছে।

বিদেশে কর্মী প্রেরণের জন্য মোট এক হাজার ৮০০ লাইসেন্সধারী রিক্রটিং এজেন্সির মধ্যে প্রায় এক হাজার ২০০ নবায়ন করা বৈধ এজেন্সিকে বঞ্চিত করে শুধু ২৫টি লাইসেন্স নিয়ে নতুন করে সিন্ডিকেট গঠনের নীল নকশার অশুভ প্রক্রিয়া চলছে বলে মন্ততব্য করেছে ‘বায়রা সিন্ডিকেট নির্মূল ঐক্যজোট’ নামের একটি সংগঠন।

রবিবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে সংগঠনের নেতারা এ দাবি জানান।

সংগঠনটির পক্ষ থেকে বলা হয়, বিতর্কিত এফডব্লিউসিএমএস সিস্টেম দুই সরকারের মন্ত্রী পর্যায়ের জয়েন্ট ওয়ার্কিং গ্রুপ বৈঠকের এজেন্ডায় রাখা হয়েছে। এফডব্লিউসিএমএস একটি মেয়াদোত্তীর্ণ এবং বিতর্কিত পদ্ধতি।

এফডব্লিউসিএমএস হচ্ছে মালয়েশিয়া সরকারের একটি অনলাইন পদ্ধতি যার মাধ্যমে ১৪টি দেশ দেশে কর্মী নেয়া হয়। তাহলে বাংলাদেশের জন্য তারা এটি কেন বন্ধ করবে এমন প্রশ্নের জবাবে বক্তারা বলেন, এই পদ্ধতির মাধ্যমেই আগে অনিয়ম হয়েছিলো। আবারো একই পদ্ধতি থাকলে সিন্ডিকেট হতে পারে।

তাহলে কি মন্ত্রণালয় সিন্ডিকেটের পক্ষে, এমন প্রশ্নে বায়রার সাবেক মহাসচিব আলী হায়দার চৌধুরী বলেন ,” ডেফিনিটলি, তা না হলে যৌথ ওয়ার্কিং গ্রুপের বৈঠকে এক নম্বর এজেন্ডা রিক্রুটিং এজেন্সির সংখ্যাটা কেন আসলো?”

এদিকে রিক্রুটিং এজেন্সির মালিকদের একাংশের সংবাদ সম্মেলনের বিষয়ে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইমরান আহমদ সংবাদ মাধ্যমে জানান, দেশ ও শ্রমিকদের স্বার্থ বিবেচনা করেই মালয়েশিয়ার শ্রমবাজার খুলতে চাচ্ছে সরকার। যারা কথা বলছে তাদের টার্গেট ব্যবসা, তাদের কিন্তু চিন্তা নেই দেশ কোন দিকে গেলো, শ্রমিক কোন দিকে গেলো।

তিনি আরও বলেন, আমি কিন্তু শ্রমিকদের সাথে বেইমানি করতে পারিনা। যদি মালয়েশিয়ার শ্রমবাজার না খুলে তাহলে কিন্তু ব্যবসায়িক ক্ষতি হবে রিক্রুটিং এজেন্টদের। আর যদি শ্রমিক যেতে না পারে তাহলে দেশের ক্ষতি হবে।  যারা সমালোচনা করে কথা বলছে তারা তাদের ব্যবসার চিন্তা করছে। আমরা চায় শ্রমবাজার চালু হোক কিন্তু দেশকে বেচে শ্রমবাজার খুলতে যাবোনা।

রিক্রুটিং এজেন্সিদের উদ্দেশ্যে ইমরান আহমদ বলেন, আমি বৈঠকে কি নিয়ে আলোচনা করবো সেটি কিন্তু বাজারের কাউকে বলবোনা। তারা সংবাদ সম্মেলন করছে তাদের উদ্দেশ্য সম্পর্কে আমি জানি না, সেটি তারাই জানে। তারা কোন যোগাযোগ ছাড়াই এই সংবাদ সম্মেলন করেছে। আর প্রাথমিক এজেন্ডা মালয়েশিয়া পাঠিয়েছে এতে কি লেখা আছে সেটি মুখ্য নয়, এটি আমরা নির্ধারণ করবো। কর্মী পাঠানোর জন্য এখনো কোন এজেন্সির তালিকা তৈরি হয়নি।

মন্ত্রী আরও বলেন, মালয়েশিয়ার সাথে যৌথ ওয়ার্কিং গ্রুপের বৈঠকে কোন সিদ্ধান্ত হলে সেটি সরকারের উচ্চ পর্যায়ের অনুমতি নিয়েই চূড়ান্ত নেয়া হবে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই জাতীয় আরও খবর
© 2018 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। এই ওয়েবসাইটের লেখ, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যাবহার বেআইনি
Theme Customized BY LatestNews