1. monir212@gmail.com : admin :
  2. support@wordpress.org : Support :
  3. merajhgazi@gmail.com : News Desk : Meraj Hossen Gazi
  4. desk@probashbarta.com : News Desk : News Desk
সোমবার, ২৪ জানুয়ারী ২০২২, ০৭:০৬ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
ইতালিতে সিজনাল ও স্পন্সর ভিসা: বাংলাদেশিদের যা জানা প্রয়োজন মার্কিন ফেডারেল কোর্টের বিচারপতি হলেন বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত নুসরাত বাংলাদেশ থেকে প্রক্রিয়াজাত খাবার-পোশাক-আসবাব নিতে আগ্রহী মেক্সিকো মালদ্বীপে লাফিয়ে বাড়ছে করোনার সংক্রমণ গোলাপগঞ্জে ইউরোপ-বাংলাদেশ প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদককে সংবর্ধনা আওয়ামী লীগের ধর্মবিষয়ক কেন্দ্রীয় উপকমিটির সদস্য জাহাঙ্গীর ফরাজী মালয়েশিয়া শ্রমবাজার: রিক্রুটিং এজেন্সি ইস্যুতে নতুন করে চিঠি চালাচালি জেদ্দায় কৃতী শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা ঢাকা-শারজাহ রুটে বিমানের ফ্লাইট ২৫ জানুয়ারি থেকে মালদ্বীপে ফের বাড়ছে করোনার সংক্রমণ

মালয়েশিয়ায় বৈধ করণ প্রক্রিয়া: সতর্ক করে দূতাবাসের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ

আহমাদুল কবির, মালয়েশিয়া :
  • প্রকাশিত : শনিবার, ১৪ নভেম্বর, ২০২০
Print Friendly, PDF & Email

 

মালয়েশিয়ায় শুরু হচ্ছে রি-কিলাবেরশন নামে অবৈধ অভিবাসীদের বৈধকরন প্রক্রিয়া। প্লান্টেশন, এগ্রিকালচার, কন্সট্রাকশন ও ম্যানুফ্যকচারিং এ চারটি সেক্টরে বৈধকরন প্রক্রিয়া শুরু হবে চলতি মাসের ১৬ নভেম্বর। চলবে আগামী বছরের ৩০ জুন পর্যন্ত। এই কর্মসূচিতে থাকবেনা কোনো এজেন্ট বা ভেন্ডর।

এ কর্মসূচীর আওতায় সোর্সকান্ট্রি অন্তর্ভুক্ত ১৫ টি দেশের অবৈধ অভিবাসী বৈধ হতে পারবেন বলে সংশ্লিষ্ট বিভাগ জানিয়েছে। শুধু নিয়োগকর্তা বা কোম্পানি অবৈধ কর্মীদের নামসহ সরাসরি ইমিগ্রেশনে আবেদন করবে ইমেইলে (rekalibrasi@imi.gov.my)।

এদিকে অতি সম্প্রতি বৈধকরন প্রক্রিয়া ঘোষণার পরই মরিয়া হয়ে উঠেছে দালাল চক্র। দালাল চক্রের প্ররোচনায় পড়ে টাকা-পাসপোর্ট লেনদেন না করতে সতর্ক করে দিয়েছে মালয়েশিয়াস্থ বাংলাদেশ হাইকমিশন। শনিবার মিশনের ফেইসবুক পেইজে এ সংক্রান্ত একটি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, মালয়েশিয়া সরকার কোন এজেন্ট বা ভেন্ডর নিয়োগ করে নি, কোম্পানি ছাড়া অন্য কারো মাধ্যমে বা নিজে নিজে ইমিগ্রেশনে গিয়ে বৈধ হওয়া যাবে না। নিয়োগকর্তা বা কোম্পানি নিজেই সরাসরি করবে। কোন ধরনের আর্থিক লেনদেন না করার জন্য শতর্ক করে দিয়েছে হাইকমিশন।

এর আগে ২০১৬ সালে ‘রিহায়ারিং প্রোগ্রাম’ নামে একটি প্রকল্প হাতে নেয় মালয়েশিয়া সরকার। প্রকল্পটি শেষ হয় ২০১৮ সালে। সে সময়ও হাইকমিশন থেকে শতর্ক করে দেয়া হয়েছিল। সচেতনতা মূলক লিফলেটও বিতরন করা হয়েছিল। তার পরেও দালাল ও ভেন্ডরের মাধ্যমে প্রতারণার শিকার হয়েছেন বাংলাদেশিরা।

খোজঁ নিয়ে জানা গেছে, সে সময় তিনটি ভেন্ডরের মাধ্যমে প্রকল্পটি পরিচালনা করে দেশটির কয়েকটি বেসরকারি সংস্থা। তারা প্রতি অভিবাসীর কাছ থেকে ৬ হাজার রিঙ্গিত বা বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় ১ লাখ ২০ হাজার টাকা জমা নেয়। ওই প্রকল্পে ৭ লাখ ৪৪ হাজার অভিবাসীদের কাছ থেকে টাক জমা নেয়া হলেও ওয়ার্ক পারমিট দেয়া হয়েছে মাত্র ১ লাখ ১০ হাজার অভিবাসীকে।

বিষয়টি নিয়ে মালয়েশিয়ায় অভিবাসীদের নিয়ে কাজ করা একটি বেসরকারি সংস্থার প্রতিবেদনে উঠে এসেছে অভিবাসীদের শোষনের কথা। প্রতিষ্ঠানটির প্রতিবেদক বলেন, বাকী ৬ লাখ ৩৪ হাজার অভিবাসীকে ওয়ার্ক পারমিট দেয়া হয়নি। এমনকি পরবর্তীতে তাদের টাকাও ফেরত দেয়া হয়নি বলে জানান তারা।

সংস্থাটির হিসেবে বৈধতা না পাওয়া অভিবাসীদের কাছ থেকে নেয়া অর্থের পরিমাণ প্রায় সাড়ে সাত হাজার কোটি টাকা। টাকা দিয়েও এসব অভিবাসীরা বৈধতা পাওয়াত দূরের কথা তারা তাদের পাসপোর্টও হারিয়েছে।

এ দিকে সংস্থাটির হিসেব অনুযায়ি ৬ লাখেরও বেশি অভিবাসী হয়রানির শিকার হলেও তাদের দায় না নিয়ে উল্টো অভিবাসীদের নিজ নিজ দেশে ফেরাতে শুরু করা হয়েছিল ব্যাক ফর গুড কর্ম সূচী।

গত বছরের ১ আগষ্ট থেকে ১২ ডিসেম্বর পর্যন্ত ব্যাকফর গুড কর্মষূচীর আওতায় মালয়েশিয়া ত্যাগ করেছেন ৩৯ হাজার বাংলাদেশীসহ ১ লাখ ৩৮ হাজার ৯শত ১জন। যার মধ্যে প্রথম অবস্থানে রয়েছে ইন্দোনেশিয়ার ৫৩ হাজার ৩শত ২৮জন। দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে বাংলাদেশের ৩৮ হাজার ৭শত ৩৪ জন।

এছাড়াও ইন্ডিয়ার ২২ হাজার ৯শত ৬৪ ও মায়ানমারের ৬ হাজার ৯শত ২৩ জন। বাকিরা বিভিন্ন দেশের নাগরিক। গত বছরের ১৪ ডিসেম্বর সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে মালয়েশিয়া অভিবাসন বিভাগের প্রধান দাতুক খায়রুল দাজাইমি দাউদ এই তথ্য প্রকাশ করেন।

সে সময় তিনি আরো বলেছিলেন, একবার তারা তাদের স্বদেশগুলোতে ফিরে গেলে পরবর্তিতে আবার মালয়েশিয়ায় ফিরলে তাদের কালো তালিকাভুক্ত করা হবে। মালয়েশিয়ার এই প্রোগ্রামে তালিকাভুক্তদের কাছ থেকে ৭৮.২ মিলিয়ন রিংগিত (১৮.৭৫ মিলিয়ন ডলার) সংগ্রহ করেছে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে। রি- হায়ারিং প্রোগ্রামের ন্যায় রি-কিলাবেরেশন প্রোগ্রামে যেন প্রতারনার পু:নরাবৃওি না ঘটে সে দিকে নজর দেয়ার আহবান জানিয়েছেন দেশটিতে বসবাসরত সচেতন অভিবাসীরা।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই জাতীয় আরও খবর
© 2018 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। এই ওয়েবসাইটের লেখ, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যাবহার বেআইনি
Theme Customized BY LatestNews