Print Friendly, PDF & Email

 

বিশেষ প্রতিবেদন: নভেম্বর মাসে দেশে প্রেরিত প্রবাসীদের কষ্টার্জিত রেমিটেন্সের পরিমাণ ১৫৬ কোটি ডলার। প্রণোদনা ও ডলারের বিনিময়মূল্য বৃদ্ধি পাওয়ায় বৈধ পথে প্রবাসীদের আয় দেশে প্রেরণের ধারাবাহিকতা অব্যাহত রয়েছে।

নভেম্বর মাসে প্রবাসীরা ১৫৬ কোটি ডলারের রেমিট্যান্স দেশে পাঠিয়েছেন। যা অক্টোবর মাসে ছিল প্রায় ১৬৪ কোটি ডলার। সেই তুলনায় নভেম্বর মাসে প্রবাসী আয় কিছুটা কমেছে

তবে ২০১৮ সালের নভেম্বরের তুলনায় এবছরের নবেম্বরে প্রবাসী আয় বেড়েছে। গত বছরের নভেম্বরে দেশে প্রবাসী আয় ১১৮ কোটি ডলার। সেই হিসাবে এক বছরের ব্যবধানে প্রবাসী আয় বেড়েছে ৩২ শতাংশ।

বাংলাদেশ ব্যাংকের রেমিটেন্স সংক্রান্ত জরিপ থেকে এ তথ্য পাওয়া গেছে। কেন্দ্রীয় ব্যাংকের তথ্য অনুযায়ী, চলতি অর্থবছরের জুলাই-নভেম্বর সময় ৭৭২ কোটি ডলার প্রবাসী আয় এসেছে। আগের বছরের এই সময়ে এসেছিল ৬২৯ কোটি ডলার। এ হিসাবে ৫ মাসে প্রবাসী আয় বেড়েছে ১৪৩ কোটি ডলার, যা শতকরা হিসাবে প্রায় ২৩ শতাংশ।

এদিকে চলতি অর্থবছরের বাজেটে প্রবাসীদের পাঠানো অর্থের ওপর ২ শতাংশ হারে প্রণোদনা দেওয়ার ঘোষনা হয়েছে। ১ জুলাই থেকে প্রবাসীরা ১০০ টাকা পাঠালে ২ টাকা প্রণোদনা পাবেন। বাজেটে এ জন্য ৩ হাজার ৬০ কোটি টাকা বরাদ্দ রাখা হয়েছে।

তবে ব্যাংকগুলো অক্টোবর থেকে প্রণোদনা দেওয়া শুরু করে। যদিও জুলাই থেকে আসা আয়ে প্রণোদনা পাওয়া যাচ্ছে। বাংলাদেশ ব্যাংকের তথ্য অনুযায়ী ২০১৭-১৮ অর্থবছরের চেয়ে ২০১৮-১৯ অর্থবছরের প্রবাসী আয়ে প্রবৃদ্ধি হয়েছে সাড়ে ৯ শতাংশ।

bdnewspaper24