Print Friendly, PDF & Email

 

বিশেষ প্রতিনিধি: বন্ধ থাকা মালয়েশিয়ার শ্রমবাজার চালুর বিষয়ে চলতি মাসের ২৪ ও ২৫ তারিখ ঢাকায় যৌথ ওয়ার্কিং গ্রুপের বৈঠক হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু হঠাৎ করে স্থগিত হলো সেই বৈঠকটি।

সোমবার (১৮ নভেম্বর) মালয়েশিয়ার পক্ষ থেকে অনানুষ্ঠানিক ভাবে জানানো হয়, আপাতত বাংলাদেশে আসছে না তাদের প্রতিনিধিদল।

প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. সেলিম রেজা প্রবাসবার্তা কে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তবে কি কারণে বৈঠকটি স্থগিত করা হয়েছে তা জানায়নি মালয়েশিয়া।

এর আগে ৬ নভেম্বর (বুধবার) মালয়েশিয়ায় প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্হান মন্ত্রী ইমরান আহমদ এবং মালয়েশিয়ার মানবসম্পদ মন্ত্রী এম কুলাসেগানের মাঝে অনুষ্ঠিত হওয়া রুদ্ধদ্বার বৈঠকে শ্রমবাজারটি চালুর বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা হয়।

সেই বৈঠকে বন্ধ মালয়েশিয়া শ্রমবাজার চালুর বিষয়ে একমত হয় উভয় দেশ। এর অংশ হিসেবে চলতি মাসের ২৪ ও ২৫ তারিখে ঢাকায় আসার কথা ছিল মালয়েশিয়ার একটি প্রতিনিধিদলের। যেখানে সিদ্ধান্ত হওয়ার কথা ছিল বাংলাদেশ থেকে কত তারিখ হতে কর্মী নেবে মালয়েশিয়া এবং বাংলাদেশের কোন কোন এজেন্সি মালয়েশিয়ায় কর্মী পাঠাতে পারবে।

কিন্তু চলতি মাসের শেষ দিকে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া এই বৈঠকটি হঠাৎ করে স্থগিত হওয়ায় আবারো ঝুলে যাচ্ছে বন্ধ থাকা মালয়েশিয়ার শ্রমবাজার পুনরায় চালু হওয়ার বিষয়টি।

উল্লেখ্য, গেলো বছরের ১লা সেপ্টেম্বর বন্ধ হয়ে যায় মালয়েশিয়ায় কর্মী পাঠানোর অনলাইন পদ্ধতি এসপিপিএ।  এরপর সে সময়ের মন্ত্রী নুরুল ইসলাম বি.এসসি ২৫ সেপ্টেম্বর মালয়েশিয়া গিয়ে বৈঠক করেও, শ্রমবাজারটি চালু করতে পারেননি। এরপর ৩১ অক্টোবর ঢাকায় দুদেশের যৌথ ওয়ার্কিং গ্রুপের বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। সেই বৈঠকে নতুন করে কর্মী নেয়ার কিছু পদ্ধতি ঠিক হয়। চলতি বছরের ১৪ মে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্হান মন্ত্রী ( তখন প্রতিমন্ত্রী) ইমরান আহমদ মালয়েশিয়া সফরে দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী তানশ্রি মুহিউদ্দিন ইয়াসিন ও মানবসম্পদ মন্ত্রী এম কুলাসেগারানের সাথে বৈঠক করেন। সেই বৈঠকের অগ্রগতি হিসেবে ২৯ ও ৩০ মে মালয়েশিয়ায় দুদেশের যৌথ ওয়ার্কিং গ্রুপের আরেকটি বৈঠক হয়।

bdnewspaper24