Print Friendly, PDF & Email

 

স্টাফ রিপোর্টার: শিক্ষার্থীদের পক্ষ থেকে বেঁধে দেয়া ৫ দফা দাবি মেনে নিয়ে নোটিশ না দেয়া হলে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বুয়েট) ভর্তি পরীক্ষা বন্ধ ও আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার হুঁশিয়ারি দিয়েছেন আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা।

শুক্রবার (১১ অক্টোবর) বুয়েট ভিসির সঙ্গে বৈঠকের পর রাত পৌনে ১১টার দিকে শিক্ষার্থীদের পক্ষ থেকে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে এ কথা জানানো হয়।

মেধাবী ছাত্র আবরার ফাহাদ হত্যার বিচার দাবিতে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) ছাত্ররা ১০দফা দাবির পরিবর্তে নতুন করে জরুরীভাবে ৫টি শর্ত বাস্তবায়নের আহ্বান জানিয়েছেন শিক্ষার্থীরা। আর দাবি বাস্তবায়ন না হলে ১৪ অক্টোবর ভর্তি পরীক্ষা বাস্তবায়ন করতে দেয়া হবে না বলে হুঁশিয়ারি করেছেন তারা।

আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা জানান, তাদের দাবি বাস্তবায়ন না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাবেন তারা। শিক্ষার্থীরা বলছেন, হলগুলোতে এখনো দলীয় নেতাকর্মী রয়েছে। ১৯জন সাময়িক বহিষ্কার হলেও তাদের স্থায়ী বহিষ্কার করা হয়নি। এছাড়া সাংগঠনিক রাজনীতি নিষিদ্ধের ঘোষণা হলেও আবারো শুরু হবে না তার নিশ্চয়তা তারা পাচ্ছে না। আর এ কারণে আগামী ১৪ অক্টোবর ভর্তি পরীক্ষা স্থগিত রাখার দাবি জানিয়েছেন আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা।

আন্দোলন আন্দোলনকারীরা বলেন, নতুন করে দেয়া ৫ দফা দাবি পূরণ না হলে বোঝা যাবে বুয়েটে নতুন করে ভর্তি পরীক্ষার আয়োজনের পরিবেশ হয়নি। তবে আমাদের ১০দফা দাবিতে আন্দোলন চলবে। শুধুমাত্র ভর্তি পরীক্ষার কথা বিবেচনা করে পাঁচ দাবি বাস্তবায়নের দাবি জানানো হয়েছে। এসব দাবি পূরণ না হলে ভর্তি পরীক্ষা স্থগিত থাকবে।

শনিবার সকাল থেকেও অন্যান্য দিনের মতো বুয়েটিয়ানদের আন্দোলন অব্যাহত থাকবে। সড়ক অবরোধ করে তারা আন্দোলন চালিয়ে যাবেন বলেও ঘোষণা দিয়েছেন।

এর আগে প্রফেসর ড. সাইফুল ইসলাম জানান, বিভিন্ন সময়ে শিক্ষার্থী নির্যাতনের সাথে জড়িতদের বিরুদ্ধে পর্যায়ক্রমে ব্যবস্থা নেয়া হবে। আবরার হত্যা মামলার সব খরচ ও ক্ষতিপূরণ দেয়া হবে প্রশাসন থেকে এবং দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে বিচার কাজ পরিচালনা করার জন্য বুয়েট প্রশাসন তদারকি করবে।

bdnewspaper24