Print Friendly, PDF & Email

 

স্টাফ রিপোর্টার: বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট) শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদ হত্যার বিচারসহ ৫ দফা  দাবি আদায়ে ষষ্ঠ দিনের মতো আন্দোলনে উত্তাল বুয়েট ক্যাম্পাস।

শনিবার (১২ অক্টোবর) দুপুর পৌনে ১২টার দিকে বুয়েটের শহীদ মিনার চত্বরে সমবেত হয়ে বিক্ষোভ শুরু করে আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা।

এ সময় আমার ভাইয়ের রক্ত/বৃথা যেতে দেবো না, ফাঁসি-ফাঁসি-ফাঁসি চাই, খুনিদের ঠিকানা/এই বুয়েটে হবেনা, এক আবরার কবরে/লাখো আবরার বাহিরে, শিক্ষা-সন্ত্রাস/একসাথে চলে না, এমন নানা স্লোগানে শহীদমিনার এলাকা প্রকম্পিত হয়ে উঠেছে।

 

শনিবার সকাল থেকে বুয়েট প্রশাসন ও একাডেমিক ভবনগুলোতে তালা খোলা হয়েছে। একাডেমিক ও প্রশাসনিক ভবনে শিক্ষক কর্মকর্তা-কর্মচারীরা নির্ধারিত সময় উপস্থিত থাকলেও শিক্ষার্থীরা শহীদ মিনারে সমবেত হয়ে বিক্ষোভ করছেন। শিক্ষার্থীদের অনুপস্থিতিতে একাডেমিক ভবনগুলো সুন-সান নীরবতা বিরাজ করছে।

আন্দোলনকারীরা বলছেন, বুয়েট ভিসি এর আগেও আমাদের বিভিন্ন আন্দোলনের পরিপ্রেক্ষিতে দাবি মেনে নিয়েছে বলে আশ্বাস দিয়েছিলেন। তবে সেসব দাবি আজও বাস্তবায়ন হয়নি। তাই আমরা তার কথার উপর এখন আস্থা রাখতে পারছিনা। সামনে যেহেতু ভর্তি পরীক্ষা তাই দ্রুততার সাথে আমাদের পাঁচটি দাবি বাস্তবায়নের শর্ত জুড়ে দেওয়া হয়েছে।

আন্দোলনকারীরা বলছেন, এসব দাবি পূরণ না হলে বোঝা যাবে বুয়েটে নতুন করে ভর্তি পরীক্ষা আয়জনের পরিবেশ হয়নি। তবে আমাদের ১০দফা দাবিতে আন্দোলন চলবে। শুধুমাত্র ভর্তি পরীক্ষার কথা বিবেচনা করে পাঁচ দফা দাবি বাস্তবায়নের দাবি জানানো হয়েছে। এসব দাবি পূরণ না হলে ভর্তি পরীক্ষা স্থগিত থাকবে।

এর আগে মেধাবী ছাত্র আবরার ফাহাদ হত্যার বিচার দাবিতে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) শিক্ষার্থীরা ১০দফা দাবির পরিবর্তে নতুন করে জরুরীভাবে ৫টি শর্ত বাস্তবায়নের আহ্বান জানিয়েছেন। আর দাবি বাস্তবায়ন না হলে ১৪ অক্টোবর ভর্তি পরীক্ষা বাস্তবায়ন করতে দেয়া হবে না বলে হুঁশিয়ারি করেছেন তারা।

bdnewspaper24