Print Friendly, PDF & Email

 

স্টাফ রিপোর্টার : ২০১৯ সালের হজ ব্যবস্থাপনা বাংলাদেশের ইতিহাসে সফলতম ব্যবস্থাপনা বলে মন্তব্য করেছেন ধর্ম প্রতিমন্ত্রী এডভোকেট শেখ মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ। তিনি বলেন, সকলের সহযোগিতায় এই সফলতা অর্জন করা সম্ভব হয়েছে।

সোমবার ( ৩০ সেপ্টেম্বর ) সচিবালয়ে হজ পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন প্রতিমন্ত্রী। তিনি বলেন, হজ এজেন্সিস এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ – হাব এবার শতভাগ সহযোগিতা নিয়ে কাজ করেছেন।

প্রতিমন্ত্রী জানান, সৌদি সরকারের পরামর্শে আগামী বছর থেকে মোট হজযাত্রীর অর্ধেক সরকারি ব্যবস্থাপনায় পাঠানো হবে। তিনি বলেন, সে লক্ষে পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে।

সাংবাদিকদের সাথে কথা বলছেন হাব সভাপতি এম তসলিম

চলতি বছর মোট ১ লাখ ২৭ হাজার ১৫২ হজযাত্রীর মধ্যে মাত্র ৬ হাজার জন সরকারি ব্যবস্থাপনায় গিয়েছে। আগের বছরগুলোতেও একই চিত্র ছিল। এমন বাস্তবতায় মন্ত্রণালয়েক  নতুন সিদ্ধান্ত কিভাবে দেখছে হজ এজেন্সিগুলোর সংগঠন হজ এজেন্সিজ এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ – হাব। সংগঠনের সভাপতি  এম শাহাদাত হোসাইন তসলিম মনে করছেন, মন্ত্রণালয়ের এই পরিকল্পনা বাস্তবায়নযোগ্য নয়। কারণ হিসেবে তিনি বলেন, আগের বছরগুলোতেও ১০ হাজার কোটা সরকারের জন্য রাখা হলেও তা পূরণ হতো না। এমনকি ২০১৯ হজ ব্যবস্থাপনাতেও সরকারি কোটা পূরণ হয়নি। উল্টোদিকে বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় কোটার বাইরে আরো অন্তত ৫০ হাজার জন এবছর যেতে অপেক্ষায় ছিলেন।

চলতি বছরে, সৌদি আরবে কাঙ্খিত সেবা না পাওয়ায় ৩৬ টি এজেন্সির বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ জমা হয় হজ মিশনে(সৌদিতে)। এ বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে প্রতিমন্ত্রী বলেন, সকল অভিযোগ সঠিক নয়। অনেকেই শুধু অভিযোগের জন্য অভিযোগ করেছেন বলেও জানান তিনি। শেখ মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ বলেন,  তারপরও কিছু বিষয় চিহ্নিত করেছেন তিনি। যেগুলো আগামীতে ঠিক করা হবে বলেও জানান ধর্ম প্রতিমন্ত্রী।

সংবাদ সম্মেলনে ধর্ম সচিব আনিসুর রহমান, পরিচালক হজ সাইফুল ইসলাম, হাব সভাপতি এম শাহাদাত হোসাইন তসলিম উপস্থিত ছিলেন।

bdnewspaper24