মন্ত্রী ইমরান আহমদ
Print Friendly, PDF & Email

 

মিরাজ হোসেন গাজী, বিশেষ প্রতিনিধি : বন্ধ শ্রমবাজার ইস্যুতে সেপ্টেম্বরের যে কোন সময় মালয়েশিয়া সফরে যাচ্ছেন প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্হান মন্ত্রী ইমরান আহমদ। সেই সফরেই ভিসা চালুর বিষয়ে চুড়ান্ত সিদ্ধান্ত হবে বলে এ প্রতিবেদককে জানান মন্ত্রী।

মন্ত্রী জানান, “মালয়েশিয়া শ্রমবাজার চালুর বিষয়ে বেশ খানিকটা অগ্রগতি আছে। কিন্তু আমি এক নম্বরে আমার দেশের স্বার্থ দেখবো। দুই নম্বরে আমাদের কর্মীদের স্বার্থ দেখবো। আমরা এখন সমঝোতা পর্যায়ে আছি। সেপ্টম্বরে মালয়েশিয়া গিয়ে – ওরা কি চায় আর আমরা কি চাই, একটা মিডিল পয়েন্টে (মধ্য পর্যায়ে) আসতে হবে। সেপ্টম্বর মাসে খোলার ( ভিসা চালুর) ব্যবস্থা হয়ে যাবে।”

তিনি বলেন, “কর্মী নেবে মালয়েশিয়া। তাদের অধিকার বেশি। তাদের কিছু চাহিদা থাকতে পারে। তারা কিভাবে কর্মী নেবে, মেডিকেল, ট্রেনিং সেটা তাদের বেশি অধিকার। আমরা গেলে একটা পর্যায়ে চলে আসবো।”

ইমরান আহমদ বলেন, “সিন্ডিকেটের খারাপ দিকটা আমরা জানি। বড়রা টাকা বানাবে, আর গরিবরা মারা যাবে। আমি ওটা হতে দেবো না। তবে, কেউ যদি বলে, সরকার নির্ধারিত ১ লাখ ৬০ হাজারের বেশি কোন কর্মীকে দিতে হবে না। সেটা হলে আমি বলবো, দ্যাট ইজ এ গুড সিন্ডিকেট (সেটা একটা ভালো সিন্ডিকেট)।”

গেলো বছরের সেপ্টেম্বরে বন্ধ যায় মালয়েশিয়া শ্রমবাজারে কর্মী যাওয়া। সে সময়ের মন্ত্রী নুরুল ইসলাম বি.এসসি ২৫ সেপ্টেম্বর মালয়েশিয়া গিয়ে বৈঠক করেও, শ্রমবাজারটি চালু করতে পারেননি। এরপর ৩১ অক্টোবর ঢাকায় দুদেশের যৌথ ওয়ার্কিং গ্রুপের বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। সেই বৈঠকে নতুন করে কর্মী নেয়ার কিছু পদ্ধতি ঠিক হয়। চলতি বছরের ১৪ মে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্হান মন্ত্রী ( তখন প্রতিমন্ত্রী) ইমরান আহমদ মালয়েশিয়া সফরে দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী তানশ্রি মুহিউদ্দিন ইয়াসিন ও মানবসম্পদ মন্ত্রী এম কুলাসেগারানের সাথে বৈঠক করেন। সেই বৈঠকের অগ্রগতি হিসেবে ২৯ ও ৩০ মে মালয়েশিয়ায় দুদেশের যৌথ ওয়ার্কিং গ্রুপের আরেকটি বৈঠক হয়। কিন্তু সেখান থেকেও শ্রমবাজার চালুর বিষয়ে কোন রুপরেখা পাওয়া যায়নি।

৭ জুলাই মালয়েশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রী সাইফুউদ্দিন বিন আব্দুল্লাহর বাংলাদেশ সফরের বৈঠক শেষে পরারাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন জানান, আগস্টেই খুলছে মালয়েশিয়ার শ্রমবাজার । এরপর প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্হান মন্ত্রী ইমরান আহমদও একই কথা বলেন। যদিও আগস্ট শেষ হলেও শ্রমবাজার খোলার বিষয়ে দৃশ্যমান কোন অগ্রগতি নেই। এবার অপেক্ষার চোখ সেপ্টেম্বরে।

 

bdnewspaper24