Print Friendly, PDF & Email

 

বিশেষ প্রতিনিধিঃ শেষ পর্যন্ত হচ্ছে না আলোচিত সৌদি ভিসা সার্ভিস সেন্টার। গেলো কয়েকদিন ধরে এ নিয়ে পক্ষে বিপক্ষে চলছিলো আন্দোলন।

রবিবার (৩০ জুন) সকালে দূতাবাস থেকে মৌখিকভাবে জানানো হয়,  আগের নিয়মেই পাসপোর্ট জমা নেয়া হবে। কোন ভিসা সেন্টারে জমা নেয়া হচ্ছে না।

রবিবার ঢাকায় রাজকীয় সৌদি দূতাবাসে ভিসা স্টিকারের জন্য পাসপোর্ট জমা দিতে যাওয়া রিক্রুটিং এজেন্সির এক প্রতিনিধি বিষয়টি নিশ্চিত করেছন ।  প্রবাস বার্তাকে তিনি জানান, ‘ দূতাবাসের কর্মকর্তা আমির আলী তাদেরকে জানিয়েছে, আগের নিয়মেই সরাসরি  দূতাবাসেই পাসপোর্ট জমা নেয়া হবে। কোন ভিসা সেন্টারে জমা দিতে হবে না।’

এর আগে জুনের মাঝামাঝি সময়ে একইভাবে দূতাবাস থেকে বলা হয়েছিলো, ‘ রবিবার (২৩ জুন থেকে) ভিসা সেন্টারে পাসপোর্ট জমা নেয়া হবে।’

এই ঘোষণার পর থেকেই আন্দোলনে নামেন বায়রার সাধারণ সদস্যরা। লাগাতার কর্মসূচি পালন করেন তারা। এরইমধ্যে গত  ২২ জুন শনিবার রাজধানীর ওয়েস্টিন হোটেলে বায়রার সাথে মতবিনিময় করেন দূতাবাসের সদ্যবিদায়ী শ্রম কাউন্সেলর। তিনি জানিয়েছিলেন,  সফটওয়্যার প্রস্তুত  না হওয়ার ভিসা সেন্টার চালু বিলম্ব হচ্ছে।

জানা গেছে, সৌদি দূতাবাসে নতুন শ্রম কাউন্সেলর যোগ দেয়ার পরই  ভিসা সেন্টার বিষয়ে নতুন করে ভাবা হচ্ছে।

এ বিষয়ে ভিসা সেন্টারের দায়িত্ব পাওয়া বায়রার সিনিয়র সদস্য আব্দুল হাই প্রবাস বার্তাকে জানান, ভিসা সেন্টার আপাতত স্থগিত করেছে দূতাবাস। তাদের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে পরবর্তী সিদ্ধান্ত না আসা পর্যন্ত স্থগিতই থাকতে পারে। তিনি বলেন, যারা আন্দোলন করছেন, তারা আসলে সঠিক করছেন না। ভিসা সেন্টার সম্পর্কে পুরো না বুঝেই আন্দোলন করছেন। এতে সৌদি আরবে দেশের ভাবমূর্তি নষ্ট হচ্ছে বলেও মনে করেন জনশক্তি খাতের সিনিয়র এই ব্যবসায়ী।

এদিকে, ভিসা সেন্টার পদ্ধতি পরিবর্তনের দাবিতে আন্দোলনকারী সংগঠন সৌদি ভিসা সেন্টার (ড্রপবক্স) সিন্ডিকেট নির্মূল কমিটির সদস্য সচিব কে এম মোবারক উল্লাহ শিমুল প্রবাস বার্তাকে জানান, তাদের প্রতিনিধিরা ( যারা দূতাবাসে পাসপোর্ট জমার জন্য যান) বলেছেন, দূতাবাস থেকে জানানো হয়েছে আগের নিয়মেই পাসপোর্ট জমা নেবে তারা। কোন ভিসা সেন্টার বা ড্রপবক্স পদ্ধতিতে জমা দিতে হবে না। তিনি বলেন, দূতাবাস এমন কথা বললেও আন্দোলন থেকে সরে আসছেন না । ভিসা সেন্টার বিষয়ে আনুষ্ঠানিক সিদ্ধান্তের আগ পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাবেন তারা।

সম্প্রতি সৌদি দূতাবাস থেকে ভিসা প্রসেসিংয়ের জন্য দুটি সার্ভিস সেন্টারের অনুমোদন দেয়া হয়। একটি বায়রার সাবেক সভাপতি নূর আলী অন্যটি সাবেক সিনিয়র সহসভাপতি আব্দুল হাইকে। এ নিয়ে লাগাতার আন্দোলন শুরু করেন বায়রার সাধারণ সদস্যরা। পরে শনিবার ভিসা সেন্টারের পক্ষেও মানববন্ধন করে বায়রার আরেকটি পক্ষ। এমন অবস্থায় দূতাবাস থেকে জানানো হলো, আগের নিয়মে দূতাবাসেই পাসপোর্ট জমা নেয়া হবে।

 

 

bdnewspaper24