Print Friendly, PDF & Email

 

স্টাফ রিপোর্টার :  দেড় লাখ টাকার মধ্যে মালয়েশিয়ায় কর্মী পাঠাতে কাজ করছে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্হান মন্ত্রণালয় ।

রবিবার (২৬ মে) প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্হান মন্ত্রণালয় আয়োজিত  সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় অনুষ্ঠানে প্রতিমন্ত্রী ইমরান আহমেদ  এ কথা জানান। তিনি বলেন, আগে সরকার নির্ধারিত ( ১,৬০,০০০ ) টাকার চেয়ে অনেক বেশি নেয়া হয়েছে কর্মীদের কাছ থেকে। ৪ লাখ ৫ লাখ টাকা পর্যন্ত নেয়া হয়েছে। এবার সেটা যেনো না হয়, সে লক্ষে কাজ করছে মন্ত্রণালয়।

২৯ এবং ৩০ মে মালয়েশিয়ায় যৌথ ওয়র্কিং গ্রুপ- জেডব্লিউজি’র বৈঠকে মলয়েশিয়া শ্রমবাজার চালুর বিষয়ে ভালো খবর আসতে পারে বলেও আশা করেন প্রতিমন্ত্রী। বলেন, বন্ধ মালয়েশিয়া শ্রমবাজার দ্বার খুলতে জেডব্লিউজি’র পর ( জুনের শুরুতে) ভালো খবর আসতে পারে।

আইএসএমটি হিউম্যান রিসোর্স ডেভলপমেন্ট লিমিটেড, ইউনিক ইস্টার্ন এবং রাব্বি ইন্টারন্যাশনাল নামের রিক্রুটিং এজেন্সি থেকে মালয়েশিয়ায় পাঠানো কর্মীরা কাজ পাচ্ছে না। এই কর্মীদের অস্তিত্বহীন কোম্পানীতে পাঠানোর বিষয়ে হাইকমিশন কিভাবে সত্যায়ন করলো- এমন প্রশ্নে প্রতিমন্ত্রী বলেন, এসব রিক্রটিং এজেন্সিকে চেনেন না তিনি। আর কর্মীদের বিষয়ে লিখিত অভিযোগ পাননি, পেলে ব্যবস্থা নেবেন।

সাংবাদিকদের পক্ষ থেকে জানানো হয়, প্রতারিত কর্মীরা হাইকমিশনে গিয়ে অভিযোগ করেছে, গণমাধ্যমের সংবাদ হয়েছে, সচিবকে লিখিতভাবে জানানো হয়েছে।

তখন প্রতিমন্ত্রী আর এ বিষয়ে আলোচনা বাড়াননি।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, বিদেশে প্রশিক্ষিত কর্মী পাঠাতে  প্রতিটি উপজেলায় একটি করে টিটিসি স্থাপন করার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

মতবিনিময় অনুষ্ঠানে, বায়রা সভাপতি বেনজির আহমেদ, মন্ত্রণালয়ের সচিব রৌনক জাহান, অতিরিক্ত সচিব মুনিরুছ সালেহীন, বিএমইটির ডিজি সেলিম রেজাসহ কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে আরবিএম সভাপতি ফিরোজ মান্না এবং সাধারণ সম্পাদক মাসুদুল হক উপস্থিত ছিলেন।

 

bdnewspaper24