Print Friendly, PDF & Email

বিশেষ প্রতিবেদক, মালয়েশিয়া থেকে : মালয়েশিয়ায় অবৈধ কর্মীদের আর বৈধতার সুযোগ দেয়া হবে না বলে স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মহিউদ্দিন ইয়াসিন ।

মঙ্গলবার ( ১৪ মে ২০১৯) মালয়েশিয়ায় দেশটির শ্রমবাজার বিষয়ে দুই মন্ত্রীর সাথে আলাদা বৈঠকে বসেন বাংলাদেশের প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্হান প্রতিমন্ত্রী ইমরান আহমেদ।

বৈঠকে ইমরান আহমেদ, মালয়েশিয়ায় অবৈধ বাংলাদেশি কর্মীদের বৈধতার সুযোগ দেয়ার অনুরোধ জানালে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী তা নাকচ করে দেন।

বৈঠকে উপস্থিত এক কর্মকর্তা জানান, প্রতিমন্ত্রীর অনুরোধ সরাসরি না করে দেন মালয়েশিয়ার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। মহিউদ্দিন ইয়াসিন, ইমরান আহমেদকে বলেন, ‘ আমরা আড়াই বছর (২০১৬ থেকে ২০১৮ আগস্ট) পর্যন্ত রিহায়ারিং কর্মসূচি চালিয়েছি। এতো দীর্ঘ সময়েও যারা সুযোগ নিতে পারেননি, তাদের জন্য আর সুযোগ দেয়া হবে না।’

মালয়েশিয়ার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেন, তবে যারা রিহায়ারিং এর সময় নিবন্ধিত হয়েছেন, টাকা জমা দিয়েছেন কিন্তু ভিসা পাননি তাদের আরেকটি বিশেষ সুযোগ দেয়া হবে। এ বিষয়ে মালয়েশিয়া সরকার কাজ করছে বলেও প্রতিমন্ত্রীকে জানিয়েছেন তিনি।

একই সাথে যারা একেবারেই অবৈধ তাদেরকে দেশে ফেরত পাঠানোর বিষয়ে সুযোগ দেয়ার কথা জানান মালয়েশিয়ার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। সে বিষয়ে তাদের মন্ত্রণালয় চিন্তা ভাবনা করছে বলেও জানান মহিউদ্দিন ইয়াসিন।

বৈঠক শেষে সোংবাদিকদের প্রাবাসী কল্যাণ প্রতিমন্ত্রী বলেন, কর্মীরা অবৈধ হয়েছে নানা উপায়ে। অধিকাংশই বেশি বেতনের আশায়, করো দেখানো লোভে পরে কোম্পানী পরিবর্তন করেছে। যেভাবেই হোক, কোম্পানী পরিবর্তন করা কর্মী মালয়েশিয়ার আইনে অপরাধী।

যারা বিভিন্ন অপরাধে সাজাপ্রাপ্ত হয়ে জেলে আছে, তাদের সাজার মেয়াদ শেষ করেই দেশে ফিরতে হবে বলেও জানিয়ে দিয়েছে দেশটি।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘কোন দেশের নিজস্ব আইনের ওপর তো অন্য দেশের প্রভাব খাটানোর সুযোগ নেই।’

বৈঠকে অবৈধ কর্মীদের বিষয়ে মালয়েশিয়ার কঠোর অবস্থানের পিছনে যুক্তি দেয়া হয় যে, বারবার সুযোগ দেয়ার আইন অমান্য করার প্রবনতা বাড়ছে। তাই এই সুযোগ আর দেয়া হবে না বলে জানিয়ে দিয়েছে মালয়েশিয়া সরকার। অনেক কর্মী ইচ্ছা করেও সুযোগ নেয়নি বলে মনে করে মালয়েশিযার কর্তৃপক্ষ । সরকারের ফি ফাঁকি দিতে বা বিনা খরচে দেশটিতে অবস্থান করতে অনেকেই বৈধতার সুযোগ নেয়নি বলে তথ্য পেয়ে মালয়েশিয়া। তাই নিজেদের দেশের আইনের প্রতি শ্রদ্ধা রেখে আর বৈধতার সুযোগ না দেয়ার সিদ্ধান্তে অটল মালয়েশিয়া সরকার।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here