Print Friendly, PDF & Email

মিরাজ হোসেন গাজী, বিশেষ প্রতিনিধি (কাতার থেকে) : ২০২২ ফুটবল বিশ্বকাপ সামনে রেখে কাতারে বাংলাদেশি দক্ষ কর্মীর বেশ চাহিদা রয়েছে বলে জানিয়েছেন বায়রার সভাপতি বেনজির আহমেদ। দু’দেশের ব্যবসায়ীদের মধ্যে এবিষয়ে ফলপ্রসু আলোচনা হয়েছে বলেও জানান তিনি। তবে, কাতারের ব্যবসায়ীরা চান, বাংলাদেশ থেকে দক্ষ কর্মী যেনো পাঠানো হয়। এছাড়াও বাংলাদেশ থেকে মাছ, সবজি, তৈরি পোশাক রফতানির সুযোগ আছে বলে জানিয়েছেন কাতারের ব্যবসায়ীরা।

 

২৮ এপ্রিল থেকে ১লা মে পর্যন্ত কাতারের রাজধানী দোহাতে চলা ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস ডেলিগেশন- আইবিডি সামিটে যোগ দিয়ে এসব কথা জানান, বেনজির আহমেদ।

বাংলাদেশ থেকে এই সামিটে অংশ নিয়েছেন জনশক্তি খাতসহ নানা খাতের ব্যবসায়ীরা। চারদিনের এই সামিটের প্রথম দিনে কাতার চেম্বারের সাথে মতবিনিময় করেন বাংলাদেশসহ বিভিন্ন দেশের ব্যবসায়ীরা। চেম্বার নেতারা বলেন, দেশটিতে ব্যবসা-বানিজ্যের নানা সুযোগ সৃষ্টি হচ্ছে প্রতিনিয়ত। বিদেশি বিনিয়োগকারীরা কাতারে সহজেই বিনিয়োগ করতে পারবেন।

সৌদি আরব ও সংযুক্ত আরব আমিরাত বানিজ্য নিষেধাজ্ঞা আরোপ করায়, কাতার এখন ভিন্ন দেশের ওপর নির্ভরশীল হচ্ছে। এই সুযোগটি নিচ্ছে, ভারতসহ আশপাশের কয়েকটি দেশ। কাতারে খাদ্যদ্রব্য উৎপাদন করা হয় না। আমদানি নির্ভর কাতারে বাংলাদেশ এই সুযোগটি নিতে পারে বলে মনে করছেন ব্যবসায়ীরা। এজন্য বাংলাদেশকে কূটনৈতিক তৎপরাতা বাড়ানোর তাগিদ দেন সংশ্লিষ্টরা।

দ্বিতীয় দিনে (২৯ এপ্রিল ২০১৯) কাতারসহ ১৩ টি দেশের ব্যবসায়ীদের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। ব্যবসায়ীরা তাদের নিজ প্রতিষ্ঠান ও পন্যের বিষয়ে আলোচনা করেন। পরস্পরের সাথে ব্যবসায়িক আলোচনায় বানিজ্যিক সুবিধা বাড়বে বলে জানান বাংলাদেশি ব্যবসায়ীরা।

চট্টগ্রামের এপি ওয়েল এর  ব্যবস্থাপনা পরিচালক, এজে এম সালেহ অর্পণ প্রবাস বার্তা’কে জানান, “ভারত এবং ওমানের দুজন ব্যবসায়ী এরইমধ্যে আমার সাথে কথা বলেছেন। তারা বাংলাদেশ থেকে লুবওয়েল নিতে চান।”

আইবিডির চেয়ারম্যান ইউসুফ আল জাবের প্রবাস বার্তা’কে বলেন, বাংলাদেশ থেকে নতুন করে আরো কর্মী কাতারে আসার সুযোগ আছে। নির্মাণ, সার্ভিস সেক্টরে আরো বেশি কর্মী আসাতে পারবে। তবে সেক্ষেত্রে দক্ষ কর্মী পাঠাতে বাংলাদেশের প্রতি আহবান জানান তিনি। শিগগরই কাতারের ব্যবসায়িরা বাংলাদেশ সফর করবেন বলেও জানান ইউসুফ আল জাবের।

আইবিডি সামিটে বাংলাদেশ সমন্বয়ক বায়রার সাবেক অর্থ বিষয়ক সম্পাদক ফখরুল ইসলাম বলেন, শুধু জনশক্তি প্রেরণই নয়, আরো বেশ কিছু পন্য রফতারিন সুযোগ আছে । এর মধ্যে ওষুধ, তৈরি পোশাক, চামরাজাত পন্য, সবজি অন্যতম। এই সামিটে কাতারসহ ১৩টি দেশের ব্যবসায়ীরা অংশ নিয়েছেন, তাই আন্তর্জাতিক বানিজ্যের নানা ক্ষেত্র তৈরি হয়েছে বলে জানান ফখরুল ইসলাম।

 

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here