Print Friendly, PDF & Email

স্টাফ রিপোর্টার: হজ এজেন্সিস এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ- হাব’র মহাসচিব এম শাহাদাত হোসেন তসলিম। গেলো দুটি হজ ব্যবস্থাপনায় তাঁর ভূমিকা বেশ প্রশংসিতও হয়। চলছে হাবের নির্বাচন। এমন সময় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে মি. তসলিমকে নিয়ে নিজের অনুভূতি লিখেছেন ব্যবসায়ী নেতা ফজলুল মতিন তৌহিদ। লেখাটি হুবহু তুলে ধরা হলো:

তসলিম ভাই গতবার যখন নির্বাচিত হয়ে মহাসচিবের দায়িত্ব নিলেন, আমরা অনেকেই ধারণা করেছি, এবার দীর্ঘদিনের মৃত হিমায়িত হাবের কবর রচিত হবে।

দুই তিন মাস যেতে না যেতে আশ্চর্যজনকভাবে আমরা লক্ষ্য করলাম, তসলিম ডাক্তারের কোরামিনে হাব জীবিত হয়ে এক পা দুই পা করে হাটতে শুরু করলো !!

হাবের প্রতিটি অঙ্গপ্রত্যঙ্গ সচল হয়ে পরিপূর্ণ যৌবন ফিরে এলো এবং ন্যায় আর সত্যের শক্তি নিয়ে এসে গেলো প্রত্যাশিত মহাসড়কের যাত্রাপথে।

শুরু হয়ে গেলো তসলিম ভাইয়ের জয় জয়কার।
অতীতে হাবকে যারা গলা টিপে হত্যা করেছে, গুণী নেতা তসলিম ভাই তাদের সমালোচনায় না থেকে হাবের উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ নিয়ে নিরলসভাবে কাজ করে আরেক দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে। তসলিম ভাইয়ের তীক্ষ্ণ মেধা, প্রতিভা, নিরহংকারীতা, শ্রদ্ধাবোধ আর নেতৃত্বগুণ দেখে অতীতের ভুলবুঝা মানুষগুলো এসে বসলো তসলিম ভাইয়ের ড্রাইভিং করা গাড়ির সিটে। ঢাল-তলোয়ার ছাড়া, চিকিৎসাধীন থাকায় সভাপতি ছাড়া, মানুষের ভালোবাসা ও সমর্থনের সাহস নিয়ে উদ্যোমী গতিতে গাড়ি ছুটলো লক্ষ্য ভেদ করা উদ্দেশ্যে এবং সেই যে ছুটছে এখনো থেমে নেই !

এবার নির্বাচনে বিবেকবান মানুষেরা তার সঙ্গী আছে।
এখন সময়, লক্ষ্য ভেদ করে ডেস্টিনেশনে বিজয়ের পতাকা উন্মোচন করা।

তবে সাবধান ! বিজয় নিশ্চিত দেখে ভালো মানুষের ভীড়ে মন্দ লোকেরা যেন তসলিম ভাইয়ের গাড়ির যাত্রী না হয় আর গাড়ি চালাতে হবে বিচক্ষণতার সাথে, কারণ এখন মর্যাদার সাথে সাথে দায়িত্ব দ্বিগুণ হয়ে গেছে।

তসলিম ভাই ও তার সঙ্গীদের মনে রাখতে হবে,,, নবী রসুলের আমলেও একদল মানুষ সর্বদা ন্যায়ের বিরুদ্ধে থেকে অন্যায়কে লালন করতো, কিন্তু তারা সময়ের স্রোতে ভেসে যেতো।

তাই বলবো বন্যেরা বনে জঙ্গলে থাকুক, আমরা প্রজ্ঞাবান ও সৎ নেতা তসলিম ভাইয়ের সাথে থেকে পরিবর্তন ও নতুন কিছু সৃষ্টির আনন্দ উপভোগ করি।

লেখক: ফজলুল মতিন তৌহিদ
মিড লাইন ইন্টারন্যাশনাল
সাধারণ সম্পাদক , ট্রাভেল ব্যবসায়ী কল্যাণ সমবায় সমিতি।
সাবেক ইসি সদস্য, বায়রা।

all.bdnewspaper24.com